বোচাগঞ্জে শিশু সুমাইয়া হত্যাকান্ডে রহস্য উৎঘাটন মা ও দাদি গ্রেফতার

বোচাগঞ্জে শিশু সুমাইয়া হত্যাকান্ডে রহস্য উৎঘাটন মা ও দাদি গ্রেফতার

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বোচাগঞ্জের ডহরা গ্রামের চাঞ্চল্যকর আড়াই মাসের শিশু সুমাইয়া হত্যাকান্ডে রহস্য উৎঘাটন করেছে বোচাগঞ্জ থানা পুলিশ। শিশু কন্যার পোস্ট মোর্টেম রিপোর্ট দেখে বোচাগঞ্জ থানা পুলিশ দাদি রিনা বেগম (৫০) ও মা মাসতারা বেগম (২০) কে বোচাগঞ্জ থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে দাদি রিনা বেগম শিশু হত্যার সাথে তিনি নিজেই জড়িত বলে মূল ঘটনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে বর্ননা করেন।

বোচাগঞ্জ থানা পুলিশ শিশু হত্যার রহস্য উৎঘাটন করে হত্যাকান্ডে জড়িত রিনা বেগমকে দিনাজপুর জেলা প্রথম শ্রেণীর ম্যাজিষ্টেট আদালতে স্বেচ্ছায় ১৬৪ ধারা মতে হত্যা কান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন দাদি রিনা বেগম। থানা পুলিশ শিশু কন্যার মা মাশতারা বেগমকে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত দুই দিনের রিমান্ড মুঞ্জর করেন।

১৪ সেপ্টেম্বর মা মাশতারা বেগমকে বোচাগঞ্জ থানা পুলিশ রিমান্ড শেষে দিনাজপুর জেলা হাজতে প্রেরণ করা হবে বলে জানান বোচাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মাহামুদুল হাসান।

একটি সুত্রে জানা গেছে, বৌমা ও শাশুড়ির পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারনে খুন হলেন আড়াই মাস বয়সি শিশু কন্যা মোছাঃ সুমাইয়া। ঘটনার বিবরনে জানা যায়, ঘটনার দিন সন্ধ্যায় একটি চেয়ারে বসাকে কেন্দ্র করে শাশুড়ি রিনা বেগম বৌমা মাসতারা বেগমের কোল হতে শিশু কন্যাটিকে ছিনিয়ে নেয়, এক পর্যায়ে কথা কাটাকাটির পর শাশুড়ি তার পুত্রবধুর কাছে শিশুকন্যাকে ছুড়ে দিয়ে বলেন এই নে তোর মেয়েকে, মা মাসতারা বেগম অপ্রস্তুত থাকায় শাশুড়ির ছুরে দেয়া নিজ কন্যা সন্তানকে ধরতে না পারায় মাটিতে পড়ে যায় শিশুটি।

এক পর্যায়ে বৌমা মাসতারা বেগম বুঝতে পারেন তার আদরের নারি ছেড়াধন কন্যা সন্তানটি আর নেই। শাশুড়ির ছুড়ে দেয়ার কারনেই শিশুটি মৃত্যু বরন করেছে। এই মর্মে শিশু কন্যার মা কান্নাকাটি শুরু করলে শাশুড়ি এগিয়ে এসে তার বৌমার সাথে শলাপরামর্শ করেন যে এই ঘটনা জানাজানি হলে আমরা দুইজনেই ফেসে যেতে পারি তাই, শিশু কন্যাটি ঘর থেকে ছিনতাই হয়েছে মর্মে একটি গল্প সাজাতে হবে । কথামত কাজ করেন শাশুড়ি রিনা বেগম, তাড়াহুরা করে শিশু কন্যাটিকে পুকুরে ফেলে দিয়ে চিৎকার শুরু করেন যে, তার নাতনিকে কে বা কাহারা ছিনতাই করে নিয়ে গেছে।

উল্লেখ্য যে, গত ৫ সেপ্টেম্বর রাত আনুমানিক ৮টার দিকে বোচাগঞ্জ উপজেলার ডহরা গ্রামের মেম্বারপাড়া গ্রামের সোহেল রানা বাড়ীতে এই ঘটনা ঘটে। পরদিন সকালে শিশু সুমাইয়ার লাশ পুকুর থেকে উদ্ধার হলে মা মাশতারা বেগম বাদী হয়ে বোচাগঞ্জ থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এই মামলার চৌকস তদন্তকারি কর্মকর্তা এস আই হাসনাত জামানের তদন্তে বেড়িয়ে এল হত্যাকান্ডের মূল রহস্য ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য