রঙিন চোখে অভিব্যক্তি ফুটে উঠুক

রঙিন চোখে অভিব্যক্তি ফুটে উঠুক

সাজগোজ টিপস

অভিব্যক্তি ফুটে ওঠে সবচেয়ে বেশি চোখে। মানুষের দৈহিক বর্ণনায় তাই চোখের আবেদনই যেন বেশি। বলা হয়, চোখ যে মনের আয়না। অর্থাৎ আপনি যা বলতে চান তা মুখে না বলেও চোখের চাহনিতেই বোঝানো যায় অনেকটাই! আর সেই চোখে যদি থাকে রঙিন সাজ, তা হলে তার আবেদন বেড়ে যায় অনেকখানি। চোখের রঙিন সাজের পরামর্শ দিয়েছেন রূপ বিশেষজ্ঞ ফারহানা রুমি।

সুন্দর করে মেকআপ করার জন্য দক্ষ রূপ বিশেষজ্ঞ হওয়ার দরকার নেই। চাই শুধু নান্দনিকতার বোধটাই। অর্থাৎ কেমন সাজে আপনাকে ভালো লাগে, সেটা সবার আগে বুঝতে হবে আপনাকেই। তবে মেকআপের চলতি ট্রেন্ড সম্পর্কেও আপনার ধারণা থাকতে হবেÑ বলছিলেন রূপ বিশেষজ্ঞ ও জারা বিউটি লাউঞ্জের স্বত্বাধিকারী ফারহানা রুমি। রুমি আরও বলেন, আসলে সাজের মধ্যে চোখের সাজটাই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আপনি হয়তো সুন্দর পোশাক পরলেন, ম্যাচিং করে লিপস্টিক দিলেন, টিপ পরলেন, ম্যাচিং জুয়েলারিও পরলেন; কিন্তু চোখজোড়া সাদামাটাই রয়ে গেল। তা হলে কিন্তু আপনার সবকিছুই মাটি। তাই চোখের মেকআপটা করতে হবে খুব যত্ন করে। চোখের সাজের জন্য

আপনার বেসিক যে জিনিসগুলো লাগবে তা হলো, কাজল, আইলাইনার, মাশকাড়া, আইশ্যাডো ও আইল্যাশ। এবার শুরু করুন মেকআপ। বেজটা তো করেই নেবেন। আর চোখের সাজের শুরুতে আইব্রো জোড়া আগে ঠিক করে নিন। মনে রাখবেন, আইব্রোর শেপ সুন্দর না হলে চোখের সাজ ফুটবে না। আজকাল আর কালো পেন্সিলে আইব্রো আর্ট করা হয় না। ব্রাউন পেন্সিল অথবা আইশ্যাডো দিয়েও ব্রু আঁকতে পারেন। এবার শ্যাডোর পালা। কোন কালার ব্যবহার করবেন, এটা আগেই ঠিক করে নিন। তবে তার আগে প্রাইমার লাগিয়ে নিন। তা হলে চোখের সাজটা দীর্ঘস্থায়ী হবে।

আজকাল চোখের সাজে খুব কালারফুল ট্রেন্ড চলছে। তবে কেউ কেউ স্মোকি আই-ই বেশি পছন্দ করেন। আপনি যদি খুব বেশি মেকআপে পারদর্শী না হন, তা হলে স্মোকিটা বেশ সহজে করতে পারেন। অনেক বেশি কালার এক্সপেরিমেন্ট করতে গেলে সাজটা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। স্মোকি করতে প্রথমে স্কিনটোনের কাছাকাছি একটা বেজ দিন। তার পর অ্যাশব্ল্যাক আইশ্যাডো ব্লেন্ড করে দিয়ে শেষ করুন। আর যারা গর্জিয়াস লুক চান, তারা এখন সাজতে পারেন মন খুলে। কারণ চোখের সাজে এখন অনেক রঙ ব্যবহার করার সুযোগ রয়েছে। একটা নয়, কয়েকটা কালারের আইশ্যাডো নিয়ে সাজতে বসুন। প্রথমে একটা লাইট শেড দিয়ে বেজ করে তার পর ব্রাইট শেড লাগান একটি অথবা দুটি। চোখে এখন আর শুধু কালো রঙের কাজলই চল নয়। চোখের ভেতরে সাদা কাজলই এখন অনেকে পছন্দ করছেন। কারণ ওয়াটারলাইনে ন্যুড বা সাদা রঙের লাইনার ব্যবহার করলে চোখ বড় দেখায়। আর ওপরের পার্টে আইলাইনার। এটা আপনি চিকন অথবা মোটা করুন যেমন আপনাকে মানায়। আইশ্যাডো গাঢ় রঙ হলে ওয়াটারলাইনে হালকা স্মাজ করে নিন। এবার আইল্যাশ পরুন। আইল্যাশ পরুন চোখের ওপর-নিচে উভয় পাশেই। আগে শুধু আইল্যাশ ওপরের পাপড়িতে লাগানো হতো। এখন ওপর-নিচ উভয় দিকেই লাগানো হয়। এরপর চোখের নিচেও ওপরের শেডের সঙ্গে মিলিয়ে আইশ্যাডো দিয়ে একটা লাইন টেনে দিন। এরপর মাশকাড়া লাগিয়ে নিন ওপরে-নিচে।

রুমি বলেন, আইশ্যাডো যে সব সময় পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং করে বেছে নিতে হবে, তা কিন্তু নয়। বেসিক কিছু রঙ সব কিছুতেই মানিয়ে যায়। আবার পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে আইশ্যাডোও ব্যবহার করতে পারেন। আপনি হয়তো নীল পোশাক পরেছেন। সে ক্ষেত্রে নীল রঙের আইশ্যাডো ব্লেন্ড করে দিতে পারেন চোখের পাতায়। এক্ষেত্রে নীল রঙের আইপেন্সিল ব্যবহার করতে পারেন। সঙ্গে নীল মাশকাড়াও ব্যবহার করুন। তা হলে দেখবেন কেমন নীলাভ শেড ছড়িয়ে পড়ে। যাদের চোখ বড় তাদের কিন্তু হালকা স্মোকি আই মেকআপই বেশি ভালো লাগে। আর আপনি যদি দিনের কোনো পার্টিতে যান তা হলে চোখের সাজ হালকা হলেই ভালো। এমনকি সে ক্ষেত্রে আইশ্যাডো না লাগিয়ে শুধু কাজল, মাশকাড়া দিয়েও চোখ সাজাতে পারেন। আর যদি পার্টি হয় রাতে এবং বিয়ের নিমন্ত্রণ বা এই জাতীয় গর্জিয়াস পার্টি, তা হলে চোখের সাজ গাঢ় হতেই পারে। গরমে ঘাম খুব বেশি হয়। তাই ওয়াটারপ্রুফ কাজল ও আইলাইনার ব্যবহার করা উচিত। রাতের সাজে চোখ অনেক বেশি আকর্ষণীয় করতে কালো লাইনারের সঙ্গে কালার লাইনার ব্যবহার করে চোখের সাজে বৈচিত্র্য আনতে পারেন। এ ছাড়াও সঙ্গে ব্যবহার করতে পারেন গ্লিটার, শিমার ও মেটালিক শ্যাডো। তা হলেই দেখবেন রঙিন চোখে আপনি হয়ে উঠেছেন আকর্ষণীয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য