ওয়াসার পানির মিটারের গর্তেই ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে

ওয়াসার পানির মিটারের গর্তেই ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে

জাতীয়

নির্মাণাধীন ৬৫ শতাংশ ভবনে আর ওয়াসার পানির মিটারের গর্তেই ২৫ শতাংশ ডেঙ্গুর লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম। বাকি লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে পরিত্যক্ত জিনিসে।

সোমবার (২ আগস্ট) দুপুরে মিরপুরের শাহ আলী মাজার এলাকায় ডেঙ্গুবাহী এডিস মশা ও চিকুনগুনিয়া প্রতিরোধে মশক নিধনে চিরুনি অভিযান পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, এখন ৬৫ শতাংশ নির্মাণাধীন ভবনেই এডিসের লার্ভা পাওয়া যাচ্ছে আর ২৫ শতাংশ ওয়াসার পানির মিটারের গর্তের মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে। বাকিগুলো পরিত্যক্ত জিনিস, ডাবের খোসা, কমোড, দইয়ের বাটি, ফুলের টবসহ বিভিন্ন জিনিসে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে যে সব এলাকাকে হট স্পট বলা হচ্ছে ডেঙ্গুর জন্য সেসব স্থানে বেশি ফগিং করা হচ্ছে। তবে ফাইন করা হবে ভয়ে যে সব ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি, তারা বাসার ঠিকানা দিচ্ছে না। তারা ঠিকানা দিলে আমরা ওই এলাকার আশেপাশে এডিস নিধনে পদক্ষেপ নিতে পারি। কিন্তু তারা তা করছে না। এদিকে এডিস মশা নিধনে কোন সেবা সংস্থার সহযোগিতাও মিলছে না।

উল্লেখ্য, ২৭ জুলাই পর্যন্ত এডিসের লার্ভা পাওয়া গেছে ৫০৮টি। নিয়মিত মামলা হয়েছে ২০টি। ২৭ জুলাই থেকে এ পর্যন্ত ২০ লাখ ৩৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসময় সংসদ সদস্য আগা খান মিন্টোসহ মিরপুর এলাকার কাউন্সিলরা উপস্থিত ছিলেন।