রংপুর পীরগঞ্জে কচুর বাম্পার ফলন ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা

রংপুর পীরগঞ্জে কচুর বাম্পার ফলন ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা

রংপুর

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় এ মওসুমে কচুর বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজলো কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবীদ সায়দুজ্জামান জানিয়েছেন,চলতি মওসুমে উপজেলার ১৫ ইউনিয়নে ৬২০ হেক্টর জমিতে পৃথক তিন জাতের কচু আবাদ হয়েছে। কচু উত্তোলন ও বাজারজাত করনে কৃষকরা তাই ব্যস্ত সময় পার করছেন। কচুর বাম্পার ফলন পেয়ে অনেক খুশী কৃষককুল।

কৃষকরা জানান,প্রতি শতক জমিতে ১ মনেরও বেশি কচুর ফলন হয়েছে। চলতি মওসুমে তারা আগাম কচু তোলা শুরু করেছেন। দামও পাচ্ছেন বেশ। প্রতি মন কচু বর্তমানে ৮ থেকে ৯’শ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের কৃষক মোফাজ্জল হোসেন বলেন-কচুর আবাদ অনেক লাভজনক। গত কয়েক বছর ধরে তিনি কচুর আবাদ করছেন।

কচু তুলে নেয়ার পর আমনচারা লাগাবেন ওই জমিতে। কচুর আবাদ করে আমন চারা রোপন করা হলে ধানের ফলনও বেশ ভাল হয় বলে তিনি জানান। বড়মজিদপুর গ্রামের কৃষক নুরুল ইসলাম বলেন-আলু তুলে নেয়ার পর ওই জমিতে কচুর আবাদ করা হয়। কচু তুলে নিয়েই আমন চারা লাগানো হলে ভাল ফলন পাওয়া যায়। প্রতি বছর এই তিন টি ফসল আবাদ করে অনেকেই লাভবান হচ্ছেন।

যে কারণে প্রতি বছররের ন্যায় এবারও কচু তুলে নিয়ে আমন চারা রোপন করছেন কৃষকরা। প্রতি বছর বিভিন্ন জেলা থেকে কচু ব্যবসায়ীরা এসে জমির শ্রেণী দেখে জমিতেই দরদাম করে কচু ক্রয় করেন। এতে কৃষক ফড়িয়া উভয়ই লাভবান হয়ে থাকেন। কারণ হিসেবে জানা যায়, জমির প্রকারভেদ এর উপর কচুর মান নির্ভর বরে।

এজন্য তারা জমি দেখে অনেকেই কচু ক্রয় করে থাকেন। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাদেকুজ্জামান আরও জানান,উপজেলায় মুখী,পানি ও লতি এই তিন জাতের কচরু আবাদ হয়েছে এই উপজেলায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য