পঞ্চগড়ে দুইটি পশুরহাট বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন

পঞ্চগড়ে দুইটি পশুরহাট বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন

রংপুর

সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ে কঠোর লকডাউনে নির্দেশনা অমান্য করে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বসানো বোদা উপজেলার একটি পশুরহাট যৌথ বাহিনীর সহায়তায় ভেঙে দিয়েছে প্রশাসন। অপরদিকে তেঁতুলিয়া উপজেলায় একটি পশুরহাট বসার প্রস্তুতি নেয়ার সময় ইজারাদার আব্দুর রশিদকে ১০ হাজার টাকার অর্থদন্ড করা হয়েছে। এর আগে একই অভিযোগে গত বৃহস্পতিবার পঞ্চগড় পৌরসভার রাজনগর পশুরহাটের ইজারাদার মোশারফ হোসেনকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে গতকাল শনিবার সকালে পঞ্চগড় জেলার সবচেয়ে বড় পশুরহাট নগরকুমারী পশুর হাটের কার্যক্রম শুরু করে। এর আগেই ইজারাদারের লোকজন চারপাশে পশুরহাট চালু করার বিষয়টি ছড়িয়ে দেয়। এতে শনিবার সকাল থেকে দূর দূরান্ত থেকে পশু নিয়ে আসেন ব্যবসায়ীসহ খামারিরা। মুহুর্তেই নগরকুমারী পশুর হাটে ক্রেতা-বিক্রেতায় হাজারো মানুষের ভিড় জমে যায়। খবর পেয়ে বোদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সোলেমান আলীর নির্দেশে হাট বন্ধ করার জন্য তাৎক্ষনিক মাইকিং করে হাট বন্ধের ঘোষণা করে সেই সাথে গরু নিয়ে বিক্রেতাদের দশ মিনিটের মধ্যে হাট ত্যাগ করার কথা প্রচার করার সাথে সাথে ফাঁকা হয়ে যায় হাট।

ওই হাটের ইজারাদার আব্দুর রহমান বলেন, বিক্রেতারা হাট শুরুর সাথে সাথে বিক্রেতাদের পাশাপাশি ক্রেতারাও এসেছেন। তাই তাদের জন্য বাধ্য হয়ে পশুর হাট চালু করেছেন। তবে সরকারিভারে লকডাউনে পশুর হাট বসানোর কোন অনুমতি দেওয়া হয়নি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সোলেমান আলী জানায়, আমাদের অজান্তে প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্য করে হাট বসিয়েছে। খবর পেয়ে পশুর হাট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে ইজারাদারকে কোন জরিমানা করা হয়নি।

এদিকে গতকাল শনিবার সকালে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহান হাটের ইজারাদার শালবাহান দাখিল মাদ্রাসা মাঠে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে কোরবানি পশুর হাট বসানোর পূর্ব প্রস্তুতি শুরু করে। খবর পেয়ে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহাগ চন্দ্র সাহা শালবাহান দাখিল মাদ্রাসা মাঠে উপস্থিত হয়ে ইজারাদার আব্দুর রশিদকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এ সময় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ওমর আলী নামে এক ব্যক্তিকে ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য