ঠাকুরগাঁওয়ে আগুনে পোড়া নারীর মরদেহ উদ্ধার, হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে চাঞ্চল্য

ঠাকুরগাঁওয়ে আগুনে পোড়া নারীর মরদেহ উদ্ধার, হত্যা না আত্মহত্যা এ নিয়ে চাঞ্চল্য

রংপুর

ঠাকুরগাঁওয়ে শান্তনা রায় মিলি (৩৫) নামের এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার পৌরসভার শহীদ মোহাম্মদ আলী সড়কের বাটা শোরুমের পার্শ্ববর্তী একটি সরু গোলী থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। শান্তনা ওই এলাকার সমীর চক্রবর্তীর স্ত্রী। সমীর পাশ্ববর্তী লোটো শো রুমের মালিক। বিষয়টি জেলায় টপ অব দ্যা টাউনে পরিনত হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শান্তনার ছেলে রাহুল সকালে ওই গোলীতে তার মায়ের মরদেহ দেখতে পেয়ে ৯৯৯ এ কল দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। ঘটনাস্থলে তথ্য সংগ্রহের জন্য বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও উপস্থিত হন সেখানে।

তবে প্রত্যক্ষদর্শী মানুষজন ধারণা করছেন তাকে অন্যত্র হত্যা করে লাশ এখানে ফেলে রাখা হয়েছে। তার মরদেহর উপরে কিছু আগুনে জ্বলানো কাপড় দেখতে পাওয়া যায়।

ছেলে রাহুল বলেন, গতকাল রাত ১১টায় আমি মায়ের সাথে কথা বলি। শান্তনার স্বামী সমীর চক্রবর্তী বলেন আমি রাতে খেলা দেখার পর ঘুমিয়ে পরি, এ বিষয়ে কিছু বলতে পারবো না।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আতিকুল ইসলাম আতিক, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই নারীর লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে তার মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুলতানা রাজিয়া জানান, ঘটনা জানার পরপরই পুলিশ লাশ উদ্ধার করে যাবতীয় আলামত জব্দ করে মরদেহ মর্গে প্রেরন করে। ওই নারীর মোবাইলফোন জব্দ করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকেও তদন্ত চলছে। পরবর্তীতে তার মৃত্যুর প্রকৃত কারণ উদঘাটন করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য