তিস্তা ও ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন প্রতিরোধে নদীতে জিও টিউব ও জিও ব্যাগ ফেলা হচ্ছে

তিস্তা ও ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন প্রতিরোধে নদীতে আধুনিক প্রযুক্তির জিও টিউব ও ব্যাগের ব্যবহার

রংপুর

অবিরাম বর্ষণ এবং উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে তিস্তার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বিভিন্ন এলাকায় তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় পানি উন্নয়ন বোর্ড জরুরী ভিত্তিতে ভাঙন প্রতিরোধে বিভিন্ন এলাকায় আধুনিক প্রযুক্তির জিও টিউব ও জিও ব্যাগ ফেলছে।

উল্লেখ্য, তিস্তা ও ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনের মুখে হাজারও বসতবাড়ি ও ফসলি জমি। ভাঙনের শঙ্কায় ভুগছে নদী পাড়ে বসবাসরত পরিবারগুলা। তিস্তার অব্যাহত ভাঙনে চলতি মৌসুমের নানা প্রজাতের ফসলসহ আবাদি জমি বিলিন হচ্ছে নদীগর্ভে।

এব্যাপারে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুত্রে জানা গেছে, পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার চন্ডিপুর, তারাপুর, হরিপুর, কাপাসিয়া ও শ্রীপুর ইউনিয়নের কিছু চরে ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। এসব এলাকায় জিও টিউব ফেলা হচ্ছে।

এদিকে ফুলছড়ি উপজেলার উড়িয়া ইউনিয়নের ভুষিরভিটা গ্রামে নদী ভাঙন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় বালুভর্তি জিও ব্যাগ ড্যা¤িপং করা হচ্ছে। ডাম্পিং কাজ পরিদর্শন করেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের উত্তরাঞ্চল রংপুরের প্রধান প্রকৌশলী জ্যোতিপ্রসাদ ঘোষ, রংপুর সার্কেল-১ এর তত্তাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুস শহিদ, ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিএম সেলিম পারভেজ, গাইবান্ধা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান প্রমুখ। উল্লেখ্য, ভুষিরভিটা গ্রামে নদী ভাঙন কবলিত ৬৫০ মিটার এলাকায় ২ কোটি ৬৯ লাখ টাকা ব্যয়ে জিও ব্যাগ ড্যা¤িপং করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য