রংপুরে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড, সক্ষমতা বাড়াতে রমেক হাসপাতালে নতুন ইউনিট

রংপুর

রংপুর বিভাগে করোনায় মৃত্যুর রেকর্ড করেছে। গত ২৪ ঘন্টায় বিভাগে ১৪ জন মারা গেছেন। এটাই রংপুর বিভাগে এপর্যন্ত সর্বোচ্চ মৃত্যু। সেই সাথে বেড়েছে সংক্রমণের হারও। সংক্রমণের হার ২১ দশমিক ৫৬। এদিকে করোনা ডেলিকেটেড হাসপাতালে রোগীর ধারণ ক্ষমতা না থাকায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চতুর্থ তলায় ৩৩ নং ওয়ার্ডকে করোনা ইউনিট হিসেবে চালু করা হচ্ছে রোববার থেকে। সেখানে পর্যায় ক্রমে ১০০ জনকে চিকিৎসা দেয়া যাবে। তবে ওই ইউনিটে আইসিইউ বেডের কোন সুবিধা নেই।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অফিস সূত্রে জানাগেছে, গত ২৪ ঘন্টায় ২ হাজার ৪৬৮ জনের দেহে নমুনা পরীক্ষা করে ৫৩২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। মোট ১ লাখ ৬০ হাজার ৬০১ জনের দেহে পরীক্ষা করে ২৭ হাজার ৬৯২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। ২৪ ঘন্টায় ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে রংপুরে১,পঞ্চগড়ে১,লালমনিরহাটে ১,ঠাকুরগাওয়ে৪, দিনাজপুরে৫ ও গাইবান্ধায় ২ জন রয়েছে। বিভাগে এপর্যন্ত ৫৫১ জন মারা গেছেন। শনিবার পর্যন্ত পর্যন্ত করেনা ডেলিকেডেট হাসপাতালের আইসিইউ’র কোন বেড খালি নেই। কর্তৃপক্ষ হাসপাতালের দেয়ালে সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছেন আইসিইউ বেড খালি নেই। এছাড়া সাধারণ ওয়ার্ডেও রোগীতে ভতি। সাধারণ ওয়ার্ডে বর্তমানে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন ৮৫ জন ।

এদিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল করিম জানান, চতুর্থ তলায় একটি ওয়ার্ড খালি করে ৪০ বেড স্থাপন করা হয়েছে। রোববার থেকে এখানে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে। ধীরে ধীরে এই ওয়ার্ডের সক্ষমতা বাড়ানো হবে। তবে এখানে কোন আইসিইউ বেড নেই বলে তিনি জানান।
বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. জাকিরুল ইসলাম বলেন, রংপুরে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যু। রংপুর -দিনাজপুরে আইসিইউ বেড খালি নেই। সক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য