দিনাজপুরে ভ্যানচালকে গলা কেটে ভ্যান ছিনতাই

দিনাজপুর

দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরের স্বপন (১৮) নামে এক ভ্যানচালকের গলা কেটে ভ্যান ছিনতাই ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রাতে পার্বতীপুর বদরগঞ্জ রোডের কোন একস্থানে দুবৃর্ত্তরা গলায় কেটে আহত করে। পরে মৃত ভেবে বদরগঞ্জের গোপিনাথপুর ইউনিয়নের মুচিরহাট এলাকার নদীতে ফেলে ভ্যান নিয়ে পালিয়ে যায়।।

সোমবার সকালে বদরগঞ্জ থানা পুলিশ ওই ভ্যানচালককে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে। বর্তমানে তিনি রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান জানান, ভ্যানচালক স্বপন মিয়া রাতের কোনো এক সময় কাজ শেষে বাড়িতে ফিরছিলেন। তিনি মুচিরহাট পার হয়ে স্থানীয় ডাঙ্গাপাড়া সংলগ্ন একটি কালভার্টে পৌঁছানো মাত্র দুর্বৃত্তরা তাকে আটক করে।

এরপর তার গলা কেটে মৃত ভেবে কালভার্ট থেকে নিচে ফেলে দেয়। পরে ভ্যান নিয়ে পালিয়ে যায়। সকালে পথচারীরা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় দেখতে পেয়ে ৯৯৯-এ কল করেন। বদরগঞ্জ থানা পুলিশ স্থানীয় দমকল বাহিনীর সহযোগিতায় তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তবে এ রিপোর্ট লেখার সময় বিকেল ৩টা ৪৫মিনিট পর্যন্ত বদরগঞ্জ থানায় কোনো লিখিত অভিযোগ হয়নি বলে জানিয়েছেন ওসি হাবিবুর রহমান।

এদিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. নাজমুল হোসাইন বলেন, ওই যুবকের শ্বাসনালী কেটে গেছে। জরুরি ভিত্তিতে তার অপারেশন প্রয়োজন। এ কারণে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

স্বপন পার্বতীপুর শহরের ইব্রাহিম নগর মহল্লার নুরুল ইসলামের ছেলে। সে পার্বতীপুর শহরের আলো পথের প্রতিবন্ধি বিদ্যালয়ের একজন অস্থায়ী কর্মচারী। স্বপনের বাবা নুরুল ইসলাম জানান, আমার ছেলে আমার কাছ থেকে ভ্যানটি নিয়ে সান্ধ্যকালীন উপার্জনের জন্য বের হয়ে আর ফিরে আসেননি। পরে বদরগঞ্জ থানা থেকে আমরা জানতে পারি তার হালদশা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য