111

নতুন ৪৭ জনসহ দিনাজপুরে “মোট আক্রান্ত ৬০৬৮” জন, গত ৫ দিনে হিলি স্থলবন্দরে শনাক্ত ১৯

লাইফ স্টাইল

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুুর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত ৫ দিনে ৮৮ জন বাংলাদেশী নাগরিক এ দেশে ফিরে আসলে তাদের মধ্যে ১৮ জনের শরীরে কোভিড-১৯ সংক্রমনের নমুনা পাওয়া গেছে। আক্রান্তদের হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অপর ৬৯ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস জানান, গত ৪ জুন থেকে আজ ৪ জুন পর্যন্ত ৫ দিনে জেলার হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ৮৮ জন বাংলাদেশী নাগরিক দেশে প্রবেশ করেছে। এদের প্রত্যাকের শরীরে নমুনা গ্রহন করে পরীক্ষায় ১৯ জনের শরীরে করোনা আক্রান্তের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। আক্রান্তদের মধ্যে ৬ জনকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে, ৭ জনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও ৬ জনকে হাকিমপুর উপজেলা স্বাথ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে নিবির পরিচর্যায় চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। অপর আগত ৬৯ জনকে হাকিমপুর ৩টি হোটেলে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেথে তাদের পর্যবেক্ষনের কাজ চলছে। এই স্থলবন্দর দিয়ে যাতে কোন যাত্রী করোনা পরীক্ষা ছাড়াই দেশের ভিতরে প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়টি কঠোর নজরদারী রাখা হয়েছে।

হাকিমপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ ওয়াহিদ ফেরদৌস জানান, ভারত থেকে আহত গত ৫ দিনে ৮৮ জন যাত্রী হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ সীমানায় প্রবেশ করেছে। তাদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত ১৯ কে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধায়নে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে।

এছাড়া যাদের শরীরে করোনার সংক্রমন পাওয়া না গেলেও তাদেরকে হাকিমপুরে ৩টি হোটেলে হোমা কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। নির্দেশ অনুযায়ী ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার পর তাদেরকে পুনরায় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে করোনার অস্তিত্ব না থাকলে নিজ বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়া হবে। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ৪৯ জনের মধ্যে এম এম হোটেলে ২০ জন, হোটেল ক্যাপিলায় ২১ জন ও হোটেল নুর জাহান লজে ২৮ জন রয়েছে। যারা হোম কোয়ারেন্টাইন রয়েছেন, তারা যাতে পালিয়ে যেতে না পারে সে নজরদারী নজরদারী চলমান রয়েছে।

এদিকে দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুস জানান, আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় প্রেস ব্রিফিংএ তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের জানান, গত ২৪ ঘন্টায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ল্যাবে ১৪১ জনের করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৪৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমের পজেটিভ পাওয়া গেছে।

আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৬০ জন করোনা রোগী ভর্তি রয়েছে। এদের মধ্যে ৩৫ জনের করোনা সংক্রমের আক্রান্ত বেশি হওয়ায় রেড জোনে ভর্তি। অপর ২৫ জন সুস্থ্য হয়ে হাসপাতালের সাধারণ বেডে চিকিৎসা নিচ্ছে। এপর্যন্ত জেলা ৬ হাজার ৬৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিল। তাদের মধ্যে ৫ হাজার ৫৬৬ জন সুস্থ্য হয়েছে। বর্তমানে ৩৪২ জন স্বাস্থ্য বিভাগের অধিনে জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। করোনা আক্রান্তের হার মঙ্গলবার ৩৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য