স্বামীর বাড়ির সামনে নিজের গায়ে আগুন দিলেন সংবাদ উপস্থাপিকা

জাতীয়

রাজধানীর মিরপুর-৬ নম্বর সেকশনে মাহমুদা শিহাবুন মুবিন মৌ (৩২) নামের এক গৃহবধূকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। রবিবার রাত ৮ টার দিকে মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনের একটি গলিতে মৌকে দগ্ধ অবস্থায় দেখতে পেয়ে প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনে বসবাসরত মৌ’র স্বামী ইরফান হাইয়ুম তাকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করায়।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন ডা. পার্থ শংকর পাল জানান, মৌ’র শরীরের ৪৬ ভাগ পুড়ে গেছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিটে (এইচডিইউ) রাখা হয়েছে।

মৌর খালা হালিমা আক্তার জানান, মৌ একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে নিউজ প্রেজেন্টার হিসেবে চাকরি করতো। বছর দুয়েক আগে চাকরি ছেড়ে দিয়ে বর্তমানে মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনে অনলাইন প্লাটফর্মে জামা কাপড় বিক্রি করে। ৮-১০ বছর আগে মৌর বিয়ে হলেও ওই চ্যানেলের ক্যামেরাম্যান ইরফান হাইয়ুমের সঙ্গে মৌর সম্পর্ক হয়। ইরফান হাইয়ুম মৌকে তার স্বামীর কাছ থেকে ডিভোর্স করাতে বাধ্য করে। পরে ইরফান মৌকে বিয়ে করেছে কিনা তা জানা নেই। হাইয়ুম আগে আরও দু’টি বিয়ে করেছে। বর্তমানে হাইয়ুম ২য় স্ত্রী নিয়ে মিরপুর-৬ নম্বর সেকশনে থাকে।

মিরপুর থানার ওসি মোস্তাজিরুর রহমান দগ্ধ মৌ’র বরাত দিয়ে জানান, ২ বছর আগে হাইয়ুমের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর হাইয়ুম তাকে বাসায় তুলতে চাচ্ছিলো না। এ নিয়ে রবিবার রাত ৮টায় মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনে হাইয়ুমের বাসার সামনের রাস্তায় নিজের গায়ে নিজেই আগুন দেন মৌ। পরে হাইয়ুম তাকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তবে মেয়ের পরিবার আমাদের কাছে অভিযোগ দিয়েছে যে তাকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। এ জন্য জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাইয়ুমকে হাসপাতাল থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে মৌ’র বাবা-মা থানায় এসে জানায় যে, তাদের কোনো অভিযোগ নেই। হাইয়ুমকে মৌ’র বাবা-মা মুচলেকা দিয়ে নিয়ে যায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য