তুর্কি সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান ইরাকের

তুর্কি সেনা প্রত্যাহারের আহ্বান ইরাকের

আন্তর্জাতিক

ইরাকি ভূখণ্ড থেকে তুরস্কের সেনাদের প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়েছে ইরাক। রবিবার দেশটির প্রেসিডেন্টের কার্যালয় এক বিবৃতিতে এই আহ্বান জানায়। একই সঙ্গে শনিবার দেশটির উত্তরাঞ্চলে মাখমুর শরণার্থী শিবিরে তুর্কি বিমান হামলার নিন্দাও জানানো হয় বিবৃতিতে। মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক সংবাদমাধ্যম মিডল-ইস্ট মনিটর এ খবর জানিয়েছে।

সম্প্রতি সশস্ত্র ড্রোন ব্যবহার করে ইরাকের অভ্যন্তরে হামলা চালিয়েছে তুরস্ক। এ হামলায় তিন বেসামরিক ব্যক্তি নিহত ও অপর দুই জন আহত হয়েছেন। ইরাকের কুর্দি এমপি রাশাদ গালালি জানান, জাতিসংঘ সহায়তা দিয়ে থাকে এমন একটি শরণার্থী ক্যাম্পের স্কুল লক্ষ্য করে ড্রোন হামলা চালিয়েছে তুরস্ক। ক্যাম্পটি নব্বইয়ের দশক তুরস্ক থেকে আসা কুর্দি শরণার্থীরা স্থাপন করেছিল। যুক্তরাষ্ট্রও এই হামলার নিন্দা জানিয়েছে।

ইরাকি প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইরাকি সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন প্রতিহত করার প্রয়োজনীয়তা আমরা উল্লেখ করতে চাই। আমরা কুর্দিস্তান ও মসুলে তুরস্কের সেনা উপস্থিতির প্রত্যাহার চাই, যা ভালো প্রতিবেশী সুলভ আচরণ এবং আন্তর্জাতিক আইন ও চুক্তির লঙ্ঘন।

ইরাকে শরণার্থী ক্যাম্পে তুর্কি হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, মাখমুর শরণার্থী শিবিরে সাম্প্রতিক হামলা শরণার্থীসহ বেসামরিক জনগণের জীবনের ঝুঁকি বাড়াবে এবং তা আন্তর্জাতিক ও মানবিক আইন পরিপন্থী।

সীমান্ত সমস্যা ও নিরাপত্তার মতো দ্বিপক্ষীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট ইস্যুতে তুরস্কের সঙ্গে সম্পর্ক শক্তিশালী করাতে গুরুত্বারোপ করা হয়েছে বিবৃতিতে। এতে আরও বলা হয়েছে, ইরাক অন্যদের যুদ্ধক্ষেত্র হতে অস্বীকৃতি জানায় এবং যে কারও বিরুদ্ধে আগ্রাসনের ক্ষেত্রও হতে চায় না।

ইরাকি ভূখণ্ডে কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) মিলিশিয়াদের উপস্থিতিরও নিন্দা জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য