দিনাজপুরে করোনার উর্ধ্বগতি রোধে লকডাউনের পরিবর্তে এ্যাকশন প্লান ঘোষনা

দিনাজপুরে করোনার উর্ধ্বগতি রোধে লকডাউনের পরিবর্তে এ্যাকশন প্লান ঘোষনা

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ক্রমাগত করোনার উর্ধ্বগতি থাকার পরও জেলা প্রশাসন লকডাউন ঘোষনা না করে সংক্রমণ প্রতিরোধে এ্যাকশন প্লান ঘোষনা করেছেন।

রোববার সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ৩ ঘন্টাব্যাপী জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির জরুরী সভায় সীমান্তবর্তী দিনাজপুরে করোনার উর্ধ্বগতি থাকা সত্তেও লকডাউন ঘোষনা না করে তা প্রতিরোধে এ্যাকশন প্লান গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকীর সভাপতিত্বে সভায় ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে যুক্ত হন সদর আসনের এমপি জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম ও জেলা করোনা সংক্রান্ত সমন্বয়কারী ধর্ম সচিব মোঃ নুরুল ইসলাম।

দীর্ঘ আলোচনার পর সভায় উপস্থিত সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে লকডাউন ঘোষনা না করে কঠোরভাবে সংক্রমণ প্রতিরোধে এ্যাকশন প্রোগ্রাম ঘোষনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তবে সংক্রমণ রোধে চায়ের দোকান সমূহ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়ে হুইপ ইকবালুর রহিম চা দোকানদারদের প্রনোদনা দেয়ার প্রস্তাব করেন।

এ্যাকশন প্লানে উল্লেখ করা হয়, করোনা আক্রান্ত রোগী ও তার পরিবারের সদস্যরা যেন নির্বিঘেœ চলাফেরা করে সংক্রমণ বৃদ্ধি করতে না পারে সেজন্য করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির বাসায় লাল পতাকা উত্তোলন, দেশের বৃহত্তম লিচু বাজারে সার্বক্ষনিক মোবাইল টিম মোতায়ন, সকলকে মাস্ক পরিধানে বাধ্য করা এবং চায়ের দোকান সমূহ বন্ধ রাখা। বৈঠকে আরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, ২-৩ দিন এ্যাকশন প্লান পর্যালোচনায় যদি করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব না হয় তাহলে পরবর্তীতে লকডাউন ঘোষনা করা হবে।

৩ ঘন্টার জরুরী বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোঃ আনোয়ার হোসেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুস, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদ সরকার, জেলা বিএমএ’র সাধারন সম্পাদক ডাঃ বিকে বোস, প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক সুব্রত মজুমদার ডলার, জেলা আওয়ামী লীগের ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল এবং শহর আওয়ামী লীগের রায়হান কবির সোহাগ ও খালেকুজ্জামান রাজু।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য