টঙ্গীতে কিশোর গ্যাংয়ের ১২ সক্রিয় সদস্য বিদেশি পিস্তলসহ গ্রেফতার

জাতীয়

গাজীপুরের টঙ্গীতে অভিযান চালিয়ে কিশোর গ্যাং ‘ডি‘ কোম্পানীর (ডেয়ারিং কোম্পানীর) ১২ সক্রিয় সদস্যকে বিদেশি পিস্তল ও দেশিয় অস্ত্রশস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১এর সদস্যরা। শনিবার রাত সাড়ে ১১টায় টঙ্গী ও উত্তরা এলাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় টঙ্গীতে কিশোর গ্যাং গ্রুপের পৃষ্ঠপোষক বাপ্পির আস্তানায় অভিযান চালিয়ে ২টি বিদেশি পিস্তল, ২টি চাপাতি, ২টি রামদা, ৩টি লোহার রড এবং ১টি ছুরি উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন-গাজীপুর জেলা মাঠ পর্যায়ে কিশোর গ্যাং এর নেতৃত্ব দানকারী রাজিব চৌধুরী বাপ্পি ওরফে লন্ডন বাপ্পি (৩৫), মইন আহমেদ নীরব ওরফে ডন নীরব (২৪), তানভীর হোসেন ওরফে ব্যাটারি তানভীর (২৪), পারভেজ ওরফে ছোট পারভেজ (১৯), তুহিন ওরফে তারকাঁটা তুহিন (২১), রাজিব আহমেদ নীরব ওরফে টম নীরব (৩০), সাইফুল ইসলাম শাওন (২৩), রবিউল হাসান (২০), শাকিল ওরফে বাঘা শাকিল (২৮), মাহফুজুর রহমান ফাহিম (২২), ইয়াছিন আরাফাত ওরফে বিস্কুট ইয়াছিন (১৮), ইয়াছিন মিয়া ওরফে প্রিন্স ইয়াছিন (১৯)।

র‌্যাব-১ বিশেষ প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, গত ০১ জুন রাত সাড়ে ৮টার দিকে কিশোর গ্যাং ডি কোম্পানীর কয়েকজন সদস্য টঙ্গী পূর্ব থানাধীন আরিচপুর এলাকাস্থ ভূঁইয়া পাড়া জামে মসজিদের সামনে তুহিন আহম্মেদ এবং তুষার আহম্মেদকে দেশীয় অস্ত্র দ্বারা আঘাত করে গুরুতর জখম করে। এই বিষয়ে তুহিন আহম্মেদ বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি মামলার দায়ের করেন। (যার নম্বর-০২ তারিখ-০২/০৬/২০২১ ইং ধারা- ১৪১/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭ /৩৭৯/৫০৬ পেনাল কোড)। কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার কারণে তারা বাদীর বাড়িঘর ও দোকানপাটে ব্যাপক ভাংচুর করে ভয়ভীতি দেখান। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩ জুন রাতে একই গ্রুপের কয়েকজন সদস্য পূর্ব থানাধীন আরিচপুর এলাকাস্থ একটি দর্জি দোকান ভাংচুর এবং চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করার ফলে জনৈক আবদুল মালেকের ছেলে আরজু মিয়া ও সুজন মিয়া এবং সুজনের স্ত্রী রুপালী গুরুতর আহত হয়।

পরে র‌্যাব-১ এর সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত ৫ জুন রাতভর টঙ্গী ও উত্তরা এলাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ‘ডি’ কোম্পানি ‘ডেয়ারিং কোম্পানী’ কিশোর গ্যাং গ্রুপের ১২ সক্রিয় সদস্যদের অস্ত্রসহ গ্রেফতার করে ঢাকার কারওয়ান বাজারস্থ র‌্যাবের হেড কোয়ার্টারে নিয়ে যায়।

গ্রেফতারকৃতরা ডি কোম্পানি ওরফে ডেয়ারিং কোম্পানী’ কিশোর গ্যাং গ্রুপের সক্রিয় সদস্য। তারা মাদক সেবন, স্কুল-কলেজে বুলিং, র‌্যাগিং, ইভটিজিং, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, ডাকাতি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অশ্লীল ভিডিও শেয়ারসহ নানাবিধ অনৈতিক কাজে লিপ্ত ছিল বলে র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত আসামিরা বর্ণিত হামলার সাথে জড়িত থাকার কথা র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছে।