দিনাজপুরে গরুর খাদ্য উন্নত জাতের ঘাসের বাজার উদ্বোধন

দিনাজপুরে গরুর খাদ্য উন্নত জাতের ঘাসের বাজার উদ্বোধন

দিনাজপুর

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুৃর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকার বলেছেন ঘাস এমনি একটি খাবার যা ছাড়া গবাদি পশু পালন করার কথা ভাবা যায় না। গবাদি পশুকে তার প্রাপ্যতা অনুযায়ী ঘাস সরবরাহ করা গেলে তার দুধ উৎপাদন বৃদ্ধি পায়, স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে এবং প্রতি বছর ১টি করে সুস্থ্য সবল বাছুর পাওয়া যায়। দেশে গবাদি পশুর লাভজনক খামার স্থাপনের জন্য উন্নত জাতের জন্য ঘাস নেটিয়ার পাকচং-১ চাষ করার ব্যাপারে মনোযোগী হতে হবে।

“গরুর মুখে দিলেই ঘাষ, দুধ পাবেন ১২ মাস”- এই প্রবাদ বাক্যকে সামনে রেখে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ২৬ মে বুধবার দিনাজপুর সদর উপজেলার ২নং সুন্দরবন ইউনিয়নের খোসালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা প্রাণি সম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারী হাসপাতাল দিনাজপুরের বাস্তবায়নে সমতল ভূমিতে বসবাসরত অনাগ্রসর ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর আর্থ সামাজিক ও জীবন মান উন্নয়নের লক্ষ্যে সমন্বিত প্রাণি সম্পদ উন্নয়ন কল্পের আওতায় আদিবাসী সম্প্রদায় সদস্যদের গাভী পালনে উৎসাহিত করতে ঘাসের বাজার উদ্বোধন করতে গিয়ে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথাগুলো বলেন।

আদিবাসী সমাজ উন্নয়ন সমিতির সভাপতি রুবেন মুর্মূর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ২নং সুন্দরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অশোক কুমার রায়, ৯নং আস্করপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জিয়া।

স্বাগত বক্তব্য রাখতে গিয়ে উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসার ডাঃ মোঃ আব্দুর রহিম বলেন, বর্তমান সরকার পিছিয়ে পরা অনাগ্রসর সুবিধাবঞ্চিত নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের মানুষদের স্বনির্ভর করতে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

পাকচং-১ জাতের ঘাসটি চাষ করে খামারস্থ গবাদি পশুর চাহিদা মেটানো হচ্ছে এবং আদিবাসীরা গবাদি পশু পালনে উৎসাহিত হচ্ছে। শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদ্বয় ঘাসের বাজার উদ্বোধন করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য