লেগুনার ধাক্কায় রিকশা থেকে ছিটকে পড়ে শিশুর মর্মান্তিক

রাজধানীতে লেগুনার ধাক্কায় রিকশা থেকে ছিটকে পড়ে শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু

জাতীয়

রাজধানীর উত্তরায় লেগুনার ধাক্কায় রিকশা থেকে ছিটকে পড়ে এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। উত্তরার আজমপুর রেলগেট এলাকায় বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১১টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশুর নাম মরিয়ম (৭)। সে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার সুন্দরপুর বাগডাঙ্গা গ্রামের রাজমিস্ত্রি রাকিব হোসেনের মেয়ে। বর্তমানে উত্তরখান ফকির শাহ মাজার এলাকায় পরিবারের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকত। তিন বোন, এক ভাইয়ের মধ্যে মরিয়ম ছিল তৃতীয়।

মরিয়মকে হাসপাতালে নিয়ে আসা পাশের বাসার ভাড়াটিয়া হৃদয় হাসান জানান, উত্তরখান ফকির শাহ মাজার এলাকায় শিশুটির পরিবার ও আমার পরিবার একই বাড়িতে ভাড়া বাসায় থাকি। আমার মেয়ে ফেরদৌসি আড়াই বছর ধরে একই সঙ্গে খেলাধুলা করে। মাঝেমধ্যে দুজনকে বাইরে নিয়ে আমি ঘুরতে যাই।

বৃহস্পতিবার সকালে আমার মেয়ে ও মরিয়মসহ রিকশায় করে পাশের এলাকায় ঘুরতে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে আজমপুর রেলগেট এলাকায় একটি লেগুনা পেছন থেকে আমাদের রিকশায় ধাক্কা দেয়। আমার কোলে ছিল আমার মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস। আর বামপাশে বসা ছিল মরিয়ম। সে লেগুনার ধাক্কায় রিকশা থেকে ছিটকে নিচে পড়ে যায়। পরে মরিয়ম ওই লেগুনাচাপায় গুরুতর আহত হয়।

তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল, পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় হৃদয় ও তার মেয়ে অক্ষত রয়েছেন।

নিহত শিশুটির বাবা রাকিব হোসেন জানান, সকালে আমার মেয়ে মরিয়মকে নিয়ে পাশের ভাড়াটিয়া হৃদয় হাসান ও তার মেয়েসহ ঘুরতে বের হয়েছিল, পরে লেগুনার ধাক্কায় রিকশা থেকে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয় মরিয়ম। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

শিশুটির মা ডলি আরা বেগম জানান, মাঝেমধ্যে পাশের ভাড়াটিয়া হৃদয় হাসানের সঙ্গে ও তার মেয়ের সঙ্গে ঘুরতে বের হতো মেয়ে মরিয়ম। আজ সকালে তাদের সঙ্গেই ঘুরতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের পুলিশ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান মৃতদেহটি হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট থানাকে জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য