পাবনা মানসিক হাসপাতালে নোবেল!

পাবনা মানসিক হাসপাতালে নোবেল!

বিনোদন

মিথ্যা নয়, পাবনার ঐতিহাসিক মানসিক হাসপাতালে গেছেন সমালোচিত সংগীতিশিল্পী নোবেল। সঙ্গে রয়েছেন তার স্ত্রীও।

বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে। যেখানে তিনি বৃহস্পতিবার (২০ মে) বেলা ৩টার দিকে একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। এতে দেখা গেছে, মানসিক হাসপাতালের চেম্বারে অবস্থান করছেন সস্ত্রীক নোবেল। চেম্বারের পাশেই গ্রিলের ওপাশে বেশ কয়েকজন মানসিক রোগীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন নোবেল। তাদের গেয়ে শোনান জাতীয় সংগীত। যে সংগীত নিয়েও তিনি সমালোচনা করেছেন একটা সময়।

ধারণা করা হচ্ছে, বৃহস্পতিবার (২০ মে) তিনি পাবনার এই মানসিক হাসপাতালে যান। তবে সেটি চিকিৎসার জন্য নাকি শুধুই পরিদর্শন- সেটি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তিনি ফোন কল গ্রহণ করেননি।

তবে তার চোখের চশমা, কাঁধে ঝোলানো ব্যাগ আর সঙ্গে স্ত্রীকে দেখে এটুকু স্পষ্ট, সাম্প্রতিক সময়ের জটিলতা থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে পুলিশের পরামর্শেই তার এই পাবনা সফর।

এর আগে গতকাল (১৯ মে) দিনভর পুলিশের সাইবার ইউনিটের মুখোমুখি ছিলেন নোবেল। নিজের সব দায় স্বীকার করেন। পোস্ট দিয়ে সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

বুধবার (১৯ মে) দুপুরের দিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সাইবার ক্রাইম ডিভিশন তাকে ডেকেছিল। পরে তিনি ডিএমপির সদর দফতরে এসে সাইবার সিকিউরিটি ও ক্রাইম ইউনিটের পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করেন। এই ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার নাজমুল ইসলামএ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

একই দিন তিনি এক স্ট্যাটাসে বলেন, ‘গায়ক নোবেল ও তার ভেরিফায়েড পেজের আপত্তিকর ও অনভিপ্রেত পোস্ট নিয়ে আমরা ইতোমধ্যে অবগত। বাংলাদেশের প্রচলিত আইন মোতাবেক ও সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গের সাথে মতামত, সম্মতি ও পরামর্শক্রমে এই বিষয়ের একটা বিশ্বাসযোগ্য ও স্থায়ী সমাধানের জন্য আমরা আইনের আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।’

নোবেল আরেকটি পোস্টে গতকালই জানান, পুলিশের সঙ্গে সাক্ষাতের পর তার মানসিক চিকিৎসা চলছে। ধারণা করা হচ্ছে, সেই সূত্রেই বৃহস্পতিবার (২০ মে) সকাল নাগাদ নোবেল গিয়েছেন পাবনার ওই হাসপাতালে।

২০১৯ সালে ভারতের জি বাংলা টেলিভিশনের রিয়েলিটি শো ‘সা রে গা মা পা’-তে অংশ নিয়ে আলোচনায় আসা নোবেল প্রথম থেকেই বিতর্কের জন্ম দিয়ে আসছেন।

গেলো বছর নিজের গানের প্রচারণায় কূটকৌশলের জন্য র‌্যাব কার্যালয়ে গিয়ে ক্ষমা চাইতে হয়েছিল তাকে।

এবারও ঈদের আগ দিয়ে নিজের ‘মেহেরবান’ গান প্রকাশের আগে ব্যান্ড লিজেন্ড নগর বাউল জেমস, তাপস, আহম্মেদ হুমায়ুন, ইথুন বাবুকে নিয়ে ফেসবুকে বাজে মন্তব্য করেন তিনি।

এছাড়া দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাতেও দেখা গেছে এই গায়ককে। সর্বশেষ সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে বাজে মন্তব্য করেন তিনি। বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল সময় টিভির অনলাইন সংস্করণের এক সাংবাদিককে অপহরণের হুমকি দেন এই সমালোচিত গায়ক।

এই কান্ড সময় টিভি কর্তৃপক্ষ সাধারণ ডায়েরি করলে সাংবাদিকদের নিয়ে বিতর্কিত পোস্ট দিয়ে পরে অবশ্য ক্ষমা চান নোবেল। এ ছাড়া ব্যান্ড তারকা জেমসের কাছেও ফেসবুকে ক্ষমা চেয়েছেন নোবেল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য