রামদেব

কুম্ভ মেলার সমালোচনা রাজনৈতিক ও সামাজিক ষড়যন্ত্র: রামদেব

আন্তর্জাতিক

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কাছে পবিত্র বলে পরিচিত কুম্ভ মেলার বিরুদ্ধে যেকোনও সমালোচনা সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের যোগগুরু রামদেব। বুধবার এই মন্তব্য করেন তিনি। এর আগে দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, কুম্ভ মেলাকে করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য দায়ী করতে বিভিন্ন সরঞ্জামের নকশা করছে বিরোধী দল কংগ্রেস।

বিশ্বের অন্যতম বড় জনসমাগম হিসেবে পরিচিত কুম্ভ মেলা। এই মেলায় ভারতের গঙ্গা নদীর তীরে সমবেত হয় লাখ লাখ তীর্থযাত্রী। পাপ মুক্তির আশায় গঙ্গা নদীতে গোসল করেন তারা। করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে এই বছরও অনুষ্ঠিত হয় কুম্ভ মেলা। স্বাস্থ্য অনুসরণ করে মেলা অনুষ্ঠানের কথা বলা হলেও আদতে তা পালন করা যায়নি। এই মেলা এবং ভারতের বড় বড় নির্বাচনি সমাগমের পরই ভারতে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ রুপ নেয়।

কুম্ভ মেলার অনুমতি প্রদান এবং নির্বাচনি প্রচার চলতে দেওয়ায় বিরোধী দলগুলোর প্রচণ্ড সমালোচনার মুখে পড়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার। এই সমালোচনার জবাবে বিরোধী দল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনে বিজেপি।

বিজেপির ওই অভিযোগের সঙ্গে সুর মিলিয়ে হিন্দুত্ববাদী যোগগুরু রামদেব বলেন, ‘যে কোনও ধরনের টুলকিট ব্যবহার করে কুম্ভ মেলা এবং সনাতন হিন্দু ধর্মের সমালোচনা করা একটি বহু বড় সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ষড়যন্ত্র, পাপ এবং অপরাধ। যেসব মানুষ এগুলো করছেন, তাদের কাছে আমার করজোড়ে অনুরোধ রাজনীতি যা করার করুন, কিন্তু একশ’ কোটির বেশি হিন্দুকে অপমান করা বন্ধ করুন। এটা আপনাদের খুবই জঘন্য কাজ। এই দেশ আপনাদের কখনওই ক্ষমা করবে না।’

যোগগুরু রামদেব বলেন, ‘আমি দেশের মানুষের এই ধরনের সনাতন বিরোধী ও ভারত বিরোধী শক্তির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলার অনুরোধ করছি।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য