অনলাইনে কাজকর্ম করছেন তারা

অনলাইনে কাজকর্ম করছেন তারা

বিনোদন

মোবাইল হাতে সবাই ব্যস্ত ফেসবুক নিয়ে। কিন্তু বলিউড তারকারা কী করেন ফেসবুকে? তারাও কি বসে বসে কে কত লাইক-কমেন্ট পেলেন বা অন্যের পোস্টে কে কী লিখলো- সেসব নিয়ে ব্যস্ত থাকেন? ক’জন তারকা পাওয়া গেলো যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে বানিয়েছেন নিজেদের সামাজিক কাজকর্মের হাতিয়ার হিসেবে-

বিষণ্ণতাবিরোধী দীপিকা

হতাশা মানুষকে চরম বিপদের দিকে নিয়ে যায়। দীপিকা পাড়ুকোন নিজেও মানসিক হতাশা কাটিয়ে ওঠেন ২০১৫ সালে। তারপর থেকে নিজের ভক্তদের এ বিষয়ে সচেতন করতে নিয়মিত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে যাচ্ছেন। নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে ভক্তদের সঙ্গে মানসিকভাবে সুস্থ থাকার নানান টিপসও শেয়ার করেন তিনি।

নারী উদ্যোক্তাদের জন্য প্রিয়াঙ্কা

ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার দায়িত্ব একটু বেশিই। এই করোনাকালে প্রিয়াংকা নারী উদ্যোক্তদের সাহায্য করে চলেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের মাধ্যমে। তিনি ভারতের ও আমেরিকার নারী উদ্যোক্তাদের ক্ষুদ্র ব্যবসাকে সাহায্য করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা ধরনের প্রচারণা চালান। এটি তার সাপ্তাহিক রুটিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি বলেন, ‘এই করোনাকালে অনেক নারী উদ্যোক্তার ব্যবসা ধসে পড়েছে। তারা যেন আবার উঠে দাঁড়াতে পারে তাই তাদের সাহায্য করার চেষ্টা করে যাচ্ছি।’

পরিবেশবাদী দিয়া মির্জা

জলবায়ু, পরিবেশ ও বন্য প্রাণী নিয়ে সদা সোচ্চার দিয়া মির্জা। এজন্য তিনি জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক শুভেচ্ছাদূতও হয়েছেন। দিয়া মির্জা নিয়মিত তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরিচ্ছন্ন পরিবেশ, সমুদ্র দূষণ রোধ ও বণ্য প্রাণী সংরক্ষণের বিভিন্ন বার্তা শেয়ার করেন।

ট্রলবিরোধী সোনাক্ষী

‘দাবাং’খ্যাত অভিনেত্রী সোনাক্ষী সিনহা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের অনলাইন অপব্যবহার রোধ করতে প্রচারণা চালান। তিনি ট্রলকারী ও বাজে মন্তব্য বা ভিডিও আপলোডকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করার প্রচারণা চালান। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তা নিয়ে এ পর্যন্ত অনেকের আইডি ব্লক করেছেন তিনি। তার কারণে অনেকে গ্রেফতারও হয়েছে।

প্রাণীদের জন্য আলিয়া

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সিনেমার প্রচারণা চালানোর সময়ও নিজের কোলে একটা বিড়াল রাখেন আলিয়া ভাট। প্রাণীভক্ত এ নায়িকা প্রাণী অধিকার নিয়েও বেশ সরব। দীপাবলির সময় আতজবাজির শব্দে যে বন্য প্রাণীদের কী পরিমাণ ক্ষতি হয় তা-ও একবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুলে ধরে বেশ প্রশংসিত হয়েছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য