ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাত থামাতে তেল আবিবে যুক্তরাষ্ট্রের দূত

ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সংঘাত থামাতে তেল আবিবে যুক্তরাষ্ট্রের দূত

আন্তর্জাতিক

ইসরায়েল-ফিলিস্তিনি চলমান সংঘাতের রাশ টানতে আলোচনার জন্য তেল আবিবে পৌঁছেছেন যুক্তরাষ্ট্রের দূত হাদি আমর।

বিবিসি জানিয়েছে, দুই পক্ষকে অস্ত্র বিরতিতে রাজি করাতে ইসরায়েল, ফিলিস্তিন ও জাতিসংঘের দূতের সঙ্গে আলোচনা করবেন তিনি।

সোমবার শুরু হওয়া সহিংসতায় এ পর্যন্ত গাজায় ফিলিস্তিনি পক্ষের ১৩৩ জন এবং ইসরায়েলের ৮ জনের মৃত্যুর খবর এসেছে। গাজায় ইসরায়েলি বিমান হামলার পাল্টায় হামাস যোদ্ধাদের রকেট ছোড়া অব্যাহত রয়েছে।

সঙ্কট নিরসনে যুক্তরাষ্ট্র ও আরব বিশ্বের কূটনীতিকদের আহ্বানের মধ্যেই শনিবার তেল আবিবে পৌঁছালেন হাদি আমর। রোববার জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের আগে তার এই সফর ‘তাৎপর্যপূর্ণ’ হয়ে উঠেছে।

ইসরায়েলে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস জানিয়েছে, হাদি আমরের এই সফরের লক্ষ্য হল ‘একটি টেকসই শান্তির লক্ষ্যে চলমান আলোচনাকে শক্তিশালী করা।’

তবে মধ্যস্থতাকারীরা এখন পর্যন্ত ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনি নেতাদের একটি অস্ত্রবিরতি চুক্তিতে রাজি করাতে পারেননি।

গাজায় ইসরায়েলের বিমান হামলার পর মধ্যপ্রাচ্যে মনোযোগ বাড়াতে বাধ্য হচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। তার প্রশাসন দ্রুততার সঙ্গে কূটনৈতিক চেষ্টায় নেমে পড়েছে, যদিও এখন পর্যন্ত ইসরায়েলে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত হিসেবে কাউকে মনোনীত করা হয়নি।

বিবিসির সাংবাদিক বারবারা প্লেট উশার বলছেন, হাদি আমর একজন মধ্যম-পর্যায়ের কূটনীতিক, যিনি মর্যাদায় যুক্তরাষ্ট্রের আগের প্রশাসনের বিশেষ দূতের সমপর্যায়ের নন।

বৃহস্পতিবার ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী রিজার্ভের সাত হাজার সেনাকে ডেকে পাঠিয়েছে এবং গাজা সীমান্তে সেনা ও ট্যাংক মোতায়েন করেছে।

ইসরায়েলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গাজায় সেনা অভিযানের বিষয়টিকে বিকল্প হিসেবে মাথায় রেখেছে তারা, তবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি।

অন্যদিকে চলমান সহিংসতার মধ্যে নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য সোমবার থেকে এখন পর্যন্ত ১০ হাজার ফিলিস্তিনি গাজায় তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে গেছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য