দিনাজপুর সীমান্তে এক আহত ভারতীয় যুবক আটক

দিনাজপুর

দিনাজপুর প্রতিনিধি॥ দিনাজপুরের বিরামপুরে সীমান্তে অবৈধ্য ভাবে বাংলাদেশের অনুপ্রবেশ করার অপরাধে আশরাফুল মোল্লা (২০) নামের এক ভারতীয় যুবককে আটক করেছে বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা। এঘটনায় ওই যুবকের নামে কন্টোল অফ এন্টি ১৯৫২ এর ৪ ধারায় সন্ধায় বিরামপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে বিজিবি। পরে ওই যুবককে পুলিশি পাহারায় বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ১৪ দিনের প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে উপজেলার দক্ষিন দাউদপুর গোবিন্দপুর সীমান্ত এলাকার ১শ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তর থেকে ওই যুবককে আটক করা হয়। আটক আশরাফুল ভারতীয় হিলি থানার ভীমপুর এলাকার নিচাগোবিন্দপুর গ্রামের রইক মিয়ার ছেলে। বিজিবি’র ভাইগড় কোম্পানি কমা-ার নজরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিজিবি’র ভাইগড় কোম্পানি কমা-ার নজরুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার সকালে ভারতীয় ওই যুবক দাউদপুর গোবিন্দপুর এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের প্রবেশ করে। এসময় কর্তব্যরত বিজিবি সদস্যরা ওই যুবককে ধাওয়া করে সীমান্তে ২৮৯/৪১ এস পিলারের কাছ থেকে ১শগজ বাংলাদেশের অভ্যন্তর থেকে আটক করে। পরে তাকে বিরামপুর থানায় কন্টোল অফ এন্টি ১৯৫২ এর ৪ ধারায় সন্ধায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

তিনি বলেন,আটক আশরাফুল মোল্লা(২০) এর শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে গত বুধবার(১২মে) দুপুরে ওই সীমান্তে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) সদস্যদের ছোঁড়া ককটেলের আঘাতে আশরাফুল আহত হন। সেই চিকিৎসা করাতেই তিনি বাংলাদেশে গোপনে প্রবেশ করার চেষ্ঠা করেছিল।

মামলার বরাত দিয়ে বিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনিরুজ্জামান মনির বলেন, শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবি দাউদপুর ক্যাম্প কমান্ডার আফজাল হোসেন ভারতীয় যুবক আশরাফুল মোল্লা কে থানায় নিয়ে আসেন। পরে তিনি ওই যুবকের নামে কন্টোল অফ এন্টি ১৯৫২ এর ৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন।

তিনি বলেন, যেহেতু ভারতে করোনা সংক্রমণ অনেক বেশি। করোনার ঝুঁকি থাকায় ভারতীয় ওই যুবককে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে পুলিশি পাহারায় প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

জানতে চাইলে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসত ডা.শাহারিয়ার কবির হিমেল বলেন,‘ বর্তমান করোনা সংক্রমনের দিক থেকে ভারতের অবস্থা খুবই খারাপ। যেহেতু ওই যুবক ভারতের নাগরীক তাই তাকে পুলিশি পাহারায় স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ১৪ দিনের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। আগামী কাল ওই যুবকের শরীর থেকে করোনা নমুনা সংগ্রহ করে দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হবে।

প্রসংগত: গত বুধবার (১৩মে) বিরামপুর উপজেলার দাউদপুর সীমান্তের গোবিন্দপুর এলাকায় ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী(বিএসএফ)সদস্যর ছোঁড়া ককটেলের আঘাতে দুই জন আহত হন। তাদের মধ্যে একজন বাংলাদেশী এবং এক ভারতীয় ছিলেন। বাংলাদেশের যুবকের নাম কাজল হোসেন। সে ওই এলাকার ফারুক হোসেন এর ছেলে। বর্তমানে সে রংপুর চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এঘটনায় ওই দিন সেখানে উভয় দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী পতাকা বৈঠক করেন। বৈঠকে ভারতের ১৯৯ ব্যাটালিয়নের রানা কান্ত এবং বাংলাদেশের দাউদপুর বিওপির কমান্ডার আফজাল হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য