কোয়াড নিয়ে বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন চীনা রাষ্ট্রদূত

কোয়াড নিয়ে বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন চীনা রাষ্ট্রদূত

জাতীয়

গত সোমবার (১০ মে) এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেছিলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের সমন্বয়ে গঠিত জোট কোয়াডে বাংলাদেশ যোগ দিলে চীনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’ তার এ মন্তব্যে সবাই বিস্মিত হয়।

ওই মন্তব্যের দুদিন পর আজ বুধবার (১২ মে) চীন থেকে আসা পাঁচ লাখ টিকা প্রদান অনুষ্ঠান শেষে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন মেঘনায় পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, মহাপরিচালক খন্দকার মোহাম্মাদ তালহা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তার সঙ্গে এক বৈঠকে বসেন চীনা রাষ্ট্রদূত। বৈঠকে ওই বিষয়টিকে ইংলিশ ভাষার দুর্বলতা ও ‘আউট অফ কনটেক্সট’ বলে অভিহিত করেন লি জিমিং। তার মতে, কোয়াড নিয়ে যা বলেছেন, সেটা তিনি ‘মিন’ করেননি বা এভাবে বলতে চাননি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘চীনের কাছ থেকে আমরা পাঁচ লাখ টিকা উপহার হিসেবে গ্রহণের পরে রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক হয়। সম্প্রতি রাষ্ট্রদূত যে মন্তব্য করেছেন সে বিষয়টি সম্পর্কে আমরা ব্যাখ্যা চেয়েছি।’

রাষ্ট্রদূত তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন বলেও জানান পররাষ্ট্র সচিব। তবে এ সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু তিনি জানাননি।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘একটি মন্তব্যের কারণে নেতিবাচক পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ন্ত্রণের জন্য চীনের রাষ্ট্রদূতের পক্ষ থেকে একটি যেমন চেষ্টা থাকা দরকার তেমনি বাংলাদেশও বিষয়টি দ্রুততার সঙ্গে মিটিয়ে ফেলতে চাইবে।’

তিনি বলেন, অনেকে হয়তো ধারণা করতে পারে চীনের রাষ্ট্রদূত ‘উলফ ওয়ারিয়র’ ডিপ্লোমেসি করছে কিন্তু এ ধরনের আগ্রাসী কূটনীতি ভালো ফল বয়ে আনে না।

আরেক কর্মকর্তা জানান, চীন যদি এগিয়ে আসে তবে বাংলাদেশের পক্ষে বিষয়টি সহজ হবে। কারণ, আমাদের বড় উন্নয়ন অংশীদার হচ্ছে বেইজিং।

উল্লেখ্য, গত ১০ মে চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং এক অনুষ্ঠানে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের সমন্বয়ে গঠিত জোট কোয়াডে বাংলাদেশে যোগ দিলে চীনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

রাষ্ট্রদূত বলেন, চীন মনে করে কোয়াড একটি চীনবিরোধী গ্রুপ এবং এই ৪ সদস্যবিশিষ্ট ক্লাবে যোগ দিলে এটি বাংলাদেশের জন্য ভালো হবে না। কারণ, এর ফলে চীনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য