দিনাজপুর ফুলবাড়ীতে ছাগল চুরির অপবাদে তিন কিশোরকে নির্যাতনের ঘটনায় আটক ৫

দিনাজপুর ফুলবাড়ীতে ছাগল চুরির অপবাদে তিন কিশোরকে নির্যাতনের ঘটনায় আটক ৫

দিনাজপুর

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ছাগল চুরির অপবাদ দিয়ে গাছে বেধে প্রতিবন্ধিসহ তিন কিশোরকে নির্যাতনের ঘটনায়, নির্যাতনকারী ৫ মাতববরকে আটক করেছে পুলিশ। পলাতক রয়েছে নির্যাতনের মুলহোতা মোস্তাকিম সরকার ওরফে বাবু মাষ্টার।

রোববার দিবাগত রাতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটক কৃতরা হলেন উপজেলার রামভদ্রপুর গ্রামের মৃত আজিম উদ্দিনের ছেলে আফজাল হোসেন (৫৫), একই এলাকার আব্দুল হালিমের ছেলে মমিনুল ইসলাম (২৮), মৃত ইউনুস আলীর ছেলে পলাশ (২৮), জাফরপুর গ্রামের মহসিন আলীর ছেলে, শাকিব বাবু (২৫) ও শহিদুল ইসলামের ছেলে শিপন ইসলাম (২৪)।

মামলা সুত্রে জানা গেছে (১মে) শনিবার সকাল সাড়ে ১১ টায় রামভদ্রপুর গ্রামের মোজাম্মেল হক এর ছেলে মোস্তাকিম সরকার ওরফে বাবু মাস্টারসহ তার কয়েকজন সঙ্গি মিলে, জাফরপুর গ্রামের সৈয়দ আব্দুর রহিমের ছেলে শারীরিক প্রতিবন্ধী সৈয়দ শামীম হোসেন (১৮) ত্রিমোহনী সুইচগেট পান দোকান থেকে ও একই এলাকার মমিনুলের ছেলে রাকিবুল ইসলাম (১৯) ও নিশাত (১৪) কে পূর্ব জাফরপুর গ্রামের নিজ বাড়ী থেকে কৌশলে ডেকে রামভদ্রপুর গ্রামের বুদ্ধিজীবী মোড় নামক স্থানে নিয়ে যায়।

এরপর গ্রামের রুপচাঁদের ছাগল চুরির অপবাদ দিয়ে, মোস্তাকিম সরকার ওরফে বাবু মাস্টারসহ একই এলাকার নুর মোহাম্মদের ছেলে রেজাউল ইসলাম, রেজাউল ইসলামের ছেলে হৃদয়, মহসিন আলীর ছেলে শাকিব বাবু, আজিম উদ্দিনের ছেলে আফজাল হোসেন , মোজাম্মেল হক এর ছেলে শুভ জাফরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে শিপন,ও মৃত নজুর ছেলে নূরনবীসহ ১০ থেকে ১২জন তিন কিশোরকে গাছের সাথে বেঁধে রড, পাইপ ও লাঠিসোটা দিয়ে মধ্যযুগীয় কায়গায় এলোপাতাড়ি ভাবে পিটিয়ে গুরুতর জখম করে।

এসময় চুরির স্বীকারোক্তি নিতে কিশোর তিনজনের পায়ে ইঞ্জেকশনের সিরিজের সুচদিয়ে পায়ের তালু ফুটিয়ে নির্যাতন চালায়। তাদের নির্যাতনে ওই কিশোরদয় গুরুতর আহত হলে, আহত কিশোরদের ইউনিয়ন পরিষোদের মাধ্যমে অভিভাকদের বাড়ীতে পৌছিয়ে দেয়া হয়। এপর আহত কিশোরদের পরিবার হাসপাতালে ভর্তি করে। এই ঘটনায় নির্যাতনের শিকার রাকিবুলের পিতা মমিনুল ইসলাম বাদি হয়ে রোববার রাতে ফুলবাড়ী থানায় নির্যাতনকারী বাবু মাস্টারসহ ৮জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞতনামা ১০-১২ জনের নামে মামলা দায়ের করেন।

ফুলবাড়ী থানার ওসি ফকরুল ইসলাম বলেন এই লোমকর্ষক ঘটনার সাথে জড়িত ৫জনকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে, মুলহোতাকে আটক করার জন্য পুলিশি অভিযান চলছে।

এদিকে গ্রামের কয়েকজন যুবক এই বর্বরোচিত নির্যাতনের ঘটনার ভিডিও চিত্র ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করায় বিষয়টি সকলে নজরে আসে। এরপর বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদটি প্রকাশ হওয়ায়, মাঠে নেমেছে আইনশৃংখলা বাহিনীর বিভিন্ন ইউনিট।

এদিকে মাতববরদের নির্যাতনের ভয়ে এখনো নিখোজ রয়েছে নইম ও নুর আলম নামে দুই কিশোর,নিখোঁজ নাইমের মা শাহানুর বানু বলেন, বাবু মাস্টারসহ তার লোকজন গত শনিবার (১ মে) মিথ্যা ছাগল চুরির অপবাদে এক প্রতিবন্ধীসহ তিন কিশোরকে মারপিট করেছে। এ ঘটনার পর থেকে তার ছেলে নাইম নিখোঁজ রয়েছে।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী বিপ্লব বলেন, তিনি তার পরিষোদের বাদল মেম্বারের মাধ্যমে দুই কিশোরকে নিজ নিজ অভিভাবকদের হাতে তুলে দিয়েছেন। নিখোজের বিষয়ে জানেন না, তবে এই ঘটনায় তিনি তিব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য