ফরাসি নাগরিকদের পাকিস্তান ত্যাগ করার নির্দেশ

আন্তর্জাতিক

ক্রমাগত হুমকির মুখে পাকিস্তানে অবস্থানরত ফরাসি নাগরিকদের দেশটি থেকে চলে আসতে এবং সেখানে থাকা ফ্রান্সের সংস্থাগুলোকে আপাতত সকল ধরনের কাজ বন্ধ রাখতে আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপের পরাশক্তিটি। আজ বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে এ খবর প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

পাকিস্তানে তেহরিক-ই-লাব্বাইকের (টিএলপি) এক শীর্ষ নেতাকে আটকের ঘটনায় দেশজুড়ে সহিংসতায় জড়িয়ে পরেছে দলটির নেতাকর্মীরা। এ ঘটনায় ইতিমধ্যে অন্তত দুইজন পুলিশ কর্মকর্তা নিহত হয়েছেন এবং আহতের সংখ্যা প্রায় দেড়’শ ছাড়িয়েছে। পাঞ্জাব প্রদেশে আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (স.) এর ব্যাঙ্গাত্বক কার্টুন প্রদর্শন করায় ফ্রান্সের নিন্দা জানিয়ে আয়োজিত সমাবেশের আগে সাদ হুসাইন রিজভী নামের ওই নেতাকে আটক করা হয়। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) রিজভীর বিরুদ্ধে একজন পুলিশ কনস্টেবলকে হত্যার প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, বিক্ষোভকারীরা তাকে অপহরণ করেছিল এবং পরে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছিল।

কূটনৈতিক সূত্র জানিয়েছে, কট্টরপন্থী ইসলামপন্থী দল তেহরিক-ই-লাব্বাইকের (টিএলপি) হুমকির মুখে পাকিস্তানে অবস্থানরত ফরাসি নাগরিক এবং সংস্থাগুলোকে রাতারাতি একটি বার্তা পাঠানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়, নাগরিকরা যেন পাকিস্তান ছেড়ে চলে যায় এবং ফরাসি সংস্থাগুলো আপাতত সাময়িকভাবে তাদের সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছরের শেষ দিকে প্যারিস ও ইসলামাবাদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটে। হযরত মোহাম্মদ (স.) এর ব্যাঙ্গাত্বক কার্টুন প্রদর্শন করাকে কেন্দ্র করেই এ পরিস্থিতির তৈরি হয়। তখন ফ্রান্সের বিরুদ্ধে পাকিস্তানসহ পুরো মুসলিম বিশ্বে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পরে। দেশটির সরকারও ফরাসি পণ্য বর্জনের অনুমোদনের বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে এবং রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের জন্য সংসদে পদক্ষেপ নেবে বলেও জানায়। যদিও তাকে আর বহিষ্কার করা হয়নি।

এদিকে, পাকিস্তান সরকার জানিয়েছে, তারা এই দলটিকে নিষিদ্ধ করবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য