Birgonjবীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ বীরগঞ্জে শিক্ষা কার্যক্রম চলছে ভারপ্রাপ্ত প্রধান দিয়ে ১৩টি স্কুল,কলেজ ও মাদ্রাসার হাজার হাজার শিক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত অন্ধকারে নিমোজ্জিত হচ্ছে, হতাশায় ভূগছেন অভিভাবক মহল ।

উপজেলা মাধ্যমিক  শিক্ষা অফিস সুত্রে জানা গেছে, বীরগঞ্জ পৌর শহরের পাইলট সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, পলাশবাড়ী ইউএসসি উচ্চ বিদ্যালয়, মুচিবাড়ী সরকারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়, একতা উচ্চ বিদ্যালয়, চৌপুকুরিয় উচ্চ বিদ্যালয়, ইব্রাহিম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতন, ব্রাম্মনভিটা উচ্চ বিদ্যালয়, প্রাণনগর আইডিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়,  চৌধুরীহাট উচ্চ বিদ্যালয়,  দলুয়া স্কুল এন্ড কলেজ. চৌধুরীহাট টিবিএম কলেজ,  কবিরাহাট  কলেজ ও জামতলী দাখিল মাদ্রাসা। বছরের পর বছর ধরে বিষয় ভিত্তিক শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ, প্রধান শিক্ষক ও সুপারিনটেনডেন্ট  এর দায়িত্ব দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ পরিচালনা করা হচ্ছে।

ফলে বিষয়ের দায়িত্বে নিয়োজিত ভারপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান প্রধান প্রশাসনিক দায়িত্ব ও অফিসিয়াল কাজে ব্যাস্ত থাকার কারনে তার নিজস্ব বিষয় অন্য শিক্ষক দ্বারা দায়সারা গোছের পাঠদান চালিয়ে নিচ্ছেন। যে কারনে স্কুল,কলেজ ও মাদ্রাসার হাজার হাজার শিক্ষার্থী নির্ধারিত বিষয়ে সুষ্ঠ শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হয়ে ভবিষ্যৎ জীবন অন্ধকারে নিমোজ্জিত হচ্ছে।  সেই কারনে হতাশায় ভূগছেন অভিভাবকেরা । অপর দিকে শিক্ষককে অতিরিক্ত দায়িত্ব চাপিয়ে দেওয়ার কারনে বিব্রতসহ জোরাতালি দিয়ে শিক্ষার্থীদের বিদায় করা হচ্ছে। ভারপ্রাপ্ত প্রধানদের প্রশাসনিক কাজে প্রশিক্ষন, দক্ষতা/অভিজ্ঞতা না থাকার কারনে সহকর্মী শিক্ষকেরা যথাযথ ভাবে গুরুত্ব না দিয়ে নিজেদের খেয়াল খুশি মতো পাঠ দিচ্ছেন ও প্রতিষ্ঠানে আগমন ও প্রস্তান করছে। প্রশাসনিক ভিত মজবুত না থাকার করনে প্রতিষ্ঠান সমুহের পরীক্ষার ফলাফল অত্যন্ত নাজুক অবস্থানে নেমে এসেছে। অভিভাবকেরা  শিক্ষার্থীদের ভাল ফলাফলের জন্য অন্য কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তিও করাতে পারছেন না।

অনুসন্ধানে জানা গেছে প্রতিষ্ঠান পরিচালনা পর্ষদের মধ্যে দিধা-দ্বন্ধ ও বিভক্তির কারনে আংশিক নিয়োগের পক্ষে ও বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে শিক্ষার সুন্দর পরিবেশ বিপন্ন করে চলেছেন। এতে বলির পাঠা হচ্ছে হাজার হাজার শিক্ষার্থী ও হতাশায় ভোগছেন অভিভাবক মহল। এ ব্যাপারে গত বৃস্পতিবার সকালে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে কর্তব্যরত সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সোহেল আখতার উল্লে¬খিত সমস্যার সত্যতা স্বীকার করেন এবং শিক্ষার সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য সংশ্লি¬ষ্ঠ সকলের প্রতি অনুরোধ জানান। এ সময় মাধ্যমিক শিক্ষা একাডেমিক সুপারভাইজার আনন্দ কুমার মন্ডল, হিসাব রক্ষক মোঃ আশরাফ আলী, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক সহকারী অধ্যাপক আবু সামা মিঞা ঠান্ডু, বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মোঃ আবেদ আলী, উপস্থিত ছিলেন। অভিভাবক মহল বিধি মোতাবেক প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটি সমুহ বিলুপ্ত ও প্রভাব মুক্ত কমিটি গঠনের জন্য শিক্ষা বোর্ডের আশু হস্তক্ষেপের জোর দাবী জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য