যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটলে হামলায় নিহত ২

আন্তর্জাতিক

আবারও হামলার চেষ্টা চালানো হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত ক্যাপিটল হিলে। শুক্রবার (২ এপ্রিল) দুপুরে ভবনের উত্তর দিকের প্রবেশমুখে এ হামলার চেষ্টা করা হয় বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ। এ ঘটনায় দুইজন নিহত হয়েছেন বলেও জানা গেছে। হামলার পরই লকডাউন করা হয় পুরো ভবন।

জানা যায়, শুক্রবার নীল রঙের একটি গাড়ি নিয়ে এক ব্যক্তি কংগ্রেস ভবনের উত্তর দিকের প্রবেশমুখের ব্যারিকেডে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে প্রবেশমুখে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা দুই নিরাপত্তাকর্মী আহত হন। পরে ওই হামলাকারী ছুরি নিয়ে ভবনের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সদস্যদের ওপর হামলা করে। এ সময় আরেকজন নিরাপত্তাকর্মী তাকে বাধা দেয় এবং গুলি চালায়। পরে আহত অবস্থায় হামলাকারী ও নিরাপত্তাকর্মীদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এদিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক পুলিশ সদস্য ও হামলাকারীর মৃত্যু হয়েছে বলে মার্কিন গণমাধ্যমকে জানিয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বেশ কয়েকটি সূত্র। এছাড়াও আহত নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন তারা।

চলতি সপ্তাহে সিনেট কিংবা প্রতিনিধি পরিষদের কোনো অধিবেশন না থাকায় আইনপ্রণেতারা সবাই নিজের বাড়িতে আছেন। এই ঘটনার কিছুক্ষণ আগে ইস্টার সানডে পালন করতে হোয়াইট হাউজ ছেড়ে ক্যাম্প ডেভিডে যান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে ভয়াবহ দাঙ্গার পর সেখানে প্রচুর ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয় এবং স্টিলের বেড়াও দেওয়া হয়। এর মধ্যেই এই হামলার ঘটনা ঘটলো।

বলা হয়েছে, তার নাম নোয়া গ্রিন, বয়স ২৫। এক ফেডারেল সূত্রের বরাতে শনিবার (৩ এপ্রিল) এ খবর দিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম সিএনএন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রিনের সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট পর্যালোচনা করে দেখা যায় তিনি চাকরি হারিয়েছেন এবং অসুস্থতায় ভুগছেন। কয়েক সপ্তাহ আগে তিনি পোস্ট করে বলেন, ফেডারেল সরকার তাকে “মাইন্ড কন্ট্রোল” দিয়ে টার্গেট করছে। হামলার দু’ঘণ্টারও কম সময় আগে গ্রিন বেশ কয়েকটি ইনস্টাগ্রাম স্টোরি পোস্ট করেছিলেন। এর মধ্যে কয়েকটি ভিডিও লিংকও রয়েছে।

হামলায় নিহত পুলিশ কর্মকর্তার নাম উইলিয়াম ‘বিলি’ ইভান্স। ১৮ বছর ধরে তিনি ক্যাপিটল পুলিশে সদস্য হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। তিনি ক্যাপিটল পুলিশের ফার্স্ট রেসপন্স দলে ছিলেন।

ক্যাপিটল পুলিশের ভারপ্রাপ্ত প্রধান যোগানন্দা পিটম্যান নিহত পুলিশ কর্মকর্তা ইভান্স এবং তার পরিবারের জন্য সমবেদনা এবং প্রার্থনা করার আহ্বান জানিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য