দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের পার্বতীপুর পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিয়মিত মাসিক বেতন ও ভাতাদী না পাওয়ায় মানবেতর জীবন-যাপন করছে। রেলওয়ে জংশন খ্যাত পার্বতীপুর পৌরসভার ১৯৭২ সালে স্থাপিত এবং পর্যায়ক্রমে পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণিতে উন্নিত হয়েছে।

বেড়েছে এলাকা সেই সাথে বেড়েছে আয়ের পরিধিও। কিন্তু সেই তুলনায় পরিবর্তন হয়নি পৌরসভায় কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভাগ্যের। প্রতিদিন কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে জনসেবা মূলক কর্মকান্ডের সাথে নিজেদেরকে জড়িয়ে রাখলেও মাস শেষে তাদেরকে বাড়ি ফিরতে হয় রিক্ত হস্তে।

নিয়মিত বেতন-ভাতাদি না পাওয়ায় এই পৌরসভায় কর্মরত ২৪ জন রাজস্ব খাতের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং ৭০ জন মাস্টার রোল কর্মচারী অন্যান্য কর্মচারীসহ মোট ১৪৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রায় এক বছর ধরে নিয়মিত বেতন-ভাতাদি থেকে বঞ্চিত রয়েছে। ফলে তাদেরকে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করতে হচ্ছে।

পৌরসভায় কর্মরত সেনেটারি ইন্সপেক্টর সুলতানা রাজিয়া বলেন, পৌরসভায় দীর্ঘদিন ধরে চাকরী করলেও নিয়মিত বেতন-ভাতাদি পাচ্ছি না। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গত ১৫ মাস ধরে আমি বেতন পাচ্ছি না। পৌরসভার হিসাব রক্ষক মোঃ দেলোয়ার হোসেন বলেন, তিনিও নয় মাস ধরে বেতন-ভাতাদি পাচ্ছেন না। এধরনের কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যাই বেশি।

নিয়মিত বেতন-ভাতাদি না পাওয়ায় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা হতাশের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন বলে কাজের আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। আজ সোমবার সকালে পৌরসভা দপ্তরে গিয়ে পৌর সচিব সাইদুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে দপ্তরে পাওয়া যায়নি।

আজ সোমবার দুপুরে এ ব্যাপারে পৌরসভার বর্তমান মেয়র আলহাজ্ব এ জেড এম মেনহাজুল হকের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কিছু কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন দেওয়া হচ্ছে এবং কিছু বাকীও রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য