দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার কাটলা বাজারে এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা চালিয়ে ইটের দেওয়াল, দরজা, টিন, বিভিন্ন আসবাব পত্র ভাংচুর ও মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে, স্ত্রী ও জামাইকে মারপিট করায় পুলিশ দুই নারীকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে হামলার ঘটনা ঘটলে আটকের পর আসামীদের আজ শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারী) দিনাজপুর আদালতের মাধ্যমে জেলা হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, কাটলা বাজারস্থ প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমানের পরিবারের উপর প্রতিপক্ষরা পূর্ব থেকে শত্রুতা করে আসছিল। এর ধারাবাহিকতায় শুক্রবার বিকেলে তফিজ উদ্দিন, তাছির উদ্দিন, লাইলী বেগম, লিলি বেগম, কামরুল ও ইসমাইল মেম্বার সংঘবদ্ধ হয়ে বে-আইনী ভাবে প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমানের বাড়িও উপর চড়াও হয়ে ইটের দেওয়াল, দরজা, বসত বাড়ির টিন, বিভিন্ন আসবাব পত্র ভাংচুর করে লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে।

এসময় বাধা দিতে গেলে মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে শাহানারা পারভীনকে (৩২) আসামীগণ লোহার রড ও বাঁশের লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারপিট করে কাঁধের হাড় ভেংগে দেয়। মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী রাহেনা বিবি ও জামাই মুকুল সরকারকে এলোপাথাড়ি মারপিট করে এবং নারীদের শ্লীলতাহানী করে। আহত মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে শাহানারা পারভীন বর্তমানে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। আহত অন্যান্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। এঘটনায় মুক্তিযোদ্ধার জামাই মুকুল সরকার বাদি হয়ে শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিরামপুর থানায় মামলা করেছেন। মামলা নং- ৩২।

এ ব্যাপারে বিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরিমল কুমার সরকার জানান, আমি ঘটনার বিষয় শুনেছি এবং থানা পুলিশকে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য বলা হয়েছে।

থানার ওসি (তদন্ত) মতিয়ার রহমান জানান, মামলার পর তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে এজাহার ভুক্ত আসামী দুই নারী লাইলী বেগম ও লিলি বেগমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আটক দুই আসামীকে দিনাজপুর আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে এবং অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য