রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমদোন না নিয়ে ৩২ নেপালি শিক্ষার্থীকে ভর্তি করিয়েছে রংপুর নর্দান মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের পাশেই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে হোস্টেল বানিয়ে সেখানে তাদের রাখা হয়েছিল। এমবিবিএস পাস করার এক বছর পার হলেও তারা ইন্টার্নশিপ করতে পারছে না। তাদের আন্দোলনের মুখে কলেজ কর্তৃপক্ষ এক মাস সময় নিলেও ইন্টার্নশিপের ব্যবস্থা করেনি।

রোববার মধ্য রাতে আন্দোলনরত ৩২ শিক্ষার্থীকে হোস্টেল থেকে বের করে দিয়েছে বাড়ির মালিক। এরপর থেকে তারা হোস্টেলের বাইরে অবস্থান করছেন।

নেপালি শিক্ষার্থী রামেজ জেটাল বলেন, রোববার মধ্য রাতে আমাদের ৩২ জনকে হোস্টেল থেকে বের করে দেয় বাড়ির মালিক। আমরা তো এই দেশের না। এভাবে বের করে দিলে কোথায় যাবো? আমরা যেন বাধ্য হয়ে দেশে ফিরে যাই সেজন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ কৌশলে এ কাজ করেছে।

আরেক শিক্ষার্থী সংগীত সাহা বলেন, আমরা যখন ভর্তি হই তখন হোটেল খরচ ও কলেজের সব টাকা একবারেই দিয়েছি। তাহলে হোস্টেল থেকে বের করে দিবে কেন আমাদের? এক মাস আগে আমরা যখন আন্দোলন শুরু করি তখন তারা এক মাসের সময় চেয়েছে। আমরা দিয়েছি, কিন্তু ইন্টার্নশিপ করতে পারছি না। আমাদের ভিসার মেয়াদ-টাকা শেষ হচ্ছে। এ কারণে আমরা নিজেদের নিরাপত্তার জন্য রাতেই রংপুর কোতোয়ালি থানায় জিডি করেছি।

নর্দান মেডিকেল কলেজের পরিচালক আফজাল হোসেন জানান, কলেজের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে একটি অসাধু মহল পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

রংপুর কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ জানান, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে রাতেই শিক্ষার্থীদের হোস্টেলে উঠিয়ে দেয়া হয়েছে। -ডেইলি বাংলাদেশ

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য