ট্রাম্পের বিচার দ্রুত সম্পন্নে মার্কিন সেনেট নেতাদের মতৈক্য

আন্তর্জাতিক

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের দ্বিতীয় অভিশংসন বিচার দ্রুতগতিতে শেষ করার বিষয়ে একমত হয়েছেন দেশটির সেনেটের নেতারা।

মঙ্গলবার থেকে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সেনেটে এ বিচারের মূল পর্ব শুরু হতে যাচ্ছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মার্কিন ক্যাপিটলে রক্তক্ষয়ী দাঙ্গার আগে সমর্থকদের উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে ‘বিদ্রোহ উসকে দেওয়ার’ অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই ঘটনার ১৪ দিন পর ২০ জানুয়ারি মেয়াদ শেষে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে বিদায় নেন তিনি।

ডেমোক্র্যাটরা বলছেন, সদ্যবিদায়ী প্রেসিডেন্টের দোষ প্রমাণে তাদের হাতে ‘যথেষ্ট’ প্রমাণ আছে।

ট্রাম্পের আইনজীবী দলের সদস্যদের ভাষ্য, ৬ জানুয়ারি দাঙ্গায় অংশগ্রহণকারীরা স্বতন্ত্রভাবেই কাজ করেছিল।

ট্রাম্পের আইনজীবী দল সেনেটের এই বিচারকে ‘অযৌক্তিক ও অসাংবিধানিক’ বলে অভিহিত করছে; মঙ্গলবারের যুক্তিতর্কেও তারা সেনেটে এ বিচারের বৈধতার প্রসঙ্গেই বেশি জোর দিতে যাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত অভিশংসিত তিন প্রেসিডেন্টের মধ্যে একজন ট্রাম্প দেশটির ইতিহাসের একমাত্র প্রেসিডেন্ট, যিনি এক মেয়াদে দুইবার অভিশংসিত হয়েছেন।

সেনেটে দোষী সাব্যস্ত হলে ট্রাম্প এর পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বা অন্য কোনো সরকারি পদের জন্য প্রার্থী হতে পারবেন না। তবে তাকে দোষী সাব্যস্ত করতে ১০০ সদস্যের সেনেটের দুই-তৃতীয়াংশ সদস্যের সমর্থন লাগবে।

সেনেটে এখন ডেমোক্র্যাট সেনেটরের সংখ্যা ৫০ আর রিপাবলিকানদের মধ্যে ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে চাওয়াদের সংখ্যা হাতেগোনা হওয়ায় বিচারে শেষ পর্যন্ত ট্রাম্প দায়মুক্ত হতে যাচ্ছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিচার পূর্ববর্তী বিবৃতিতে সোমবার ট্রাম্পের আইনজীবীরা বলেছেন, সেনেটের এই বিচার অসাংবিধানিক; কেননা, ট্রাম্পের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে, তিনি এখন একজন সাধারণ নাগরিক।

প্রতিনিধি পরিষদের যে নয় ডেমোক্র্যাট সদস্য সেনেটের বিচারে কৌঁসুলির দায়িত্ব পালন করবেন, সেই ‘অভিশংসন ব্যবস্থাপকরা’ ট্রাম্পের আইনজীবীদের এ যুক্তিতে আপত্তি জানিয়েছেন। বলেছেন, প্রেসিডেন্ট হিসেবে করা কর্মকাণ্ডের জন্য তাকে জবাবদিহিতার আওতায় আনা উচিত।

মঙ্গলবার উভয়পক্ষ সেনেটে ট্রাম্পের বিচার সংবিধানসম্মত হচ্ছে কিনা, তা নিয়ে যুক্তি পাল্টা যুক্তি দিতে চার ঘণ্টা করে সময় পাবে।

দিনের শেষভাগে বিচার চালিয়ে যাওয়া হবে কি না, তা নিয়ে সেনেটে ভোট হতে পারে বলে ধারণা বিবিসির।

যুক্তিতর্ক পর্ব শুরুর আগে বিচারের প্রক্রিয়া ও কাঠামো নিয়ে সোমবার সেনেটের নেতারা একমত হন।

“সাবেক প্রেসিডেন্টের ন্যায্য ও সঠিক অভিশংসন বিচার নিশ্চিতে এর কাঠামো নিয়ে সব পক্ষ একমত হয়েছে,” বলেছেন সেনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের নেতা ডেমোক্র্যাট চাক শুমার।

বিচার সংবিধান সম্মত কিনা, মঙ্গলবারের এ সংক্রান্ত ভোট ডেমোক্র্যাটদের পক্ষে গেলে বুধবার বিকাল থেকে উভয় পক্ষের প্রাথমিক যুক্তিতর্ক শুরু হবে; এই পর্বে দুই পক্ষই তাদের উপস্থাপনার জন্য সর্বোচ্চ ১৬ ঘণ্টা করে সময় পেতে পারেন।

যুক্তিতর্ক শেষ হলে সেনেটররা উভয় পক্ষকে প্রশ্ন করার সুযোগ পাবেন। এরপর অভিশংসন ব্যবস্থাপকরা সাক্ষী ডাকা কিংবা পরোয়ানা জারির জন্য অনুরোধ জানিয়ে বিচারপর্ব দীর্ঘায়িত করবেন কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

ট্রাম্প অবশ্য এর মধ্যেই সাক্ষ্য দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের করোনাভাইরাস প্রণোদনা প্যাকেজ অনুমোদনের চেষ্টার মধ্যে ডেমোক্র্যাট-রিপাবলিক উভয় দলের আইনপ্রণেতারা উচ্চকক্ষে ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার দ্রুত শেষ করতে আগ্রহের কথা জানিয়েছেন।

দ্রুত বিচারে সেনেটরদের এ মতৈক্যের কারণে ট্রাম্প দোষী কি নির্দোষ, সে সংক্রান্ত ভোট সপ্তাহখানেকের মধ্যেই হয়ে যেতে পারে বলেও অনুমান অনেকের।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য