পঞ্চগড়ে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে কমলা চাষ

রংপুর বিভাগ

পঞ্চগড়ে কমলার চাষ দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বাসাবাড়ী ও স্বল্প পরিসরে ছোট ছোট বাগানে মানুষ কমলার ফলন আশায় কৃষকরাও খুশি। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, পঞ্চগড়ে উৎপাদিত কমলা স্বাদ পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের দার্জিলিংয়ের কমলার মতো। স্থানীয় কৃষি বিভাগের কারিগরি সহায়তায় জেলায় কমলা চাষ বাণিজ্যিক ভাবে শুরু হয়েছে। বাজারের চাহিদা ও লাভজনক হওয়ায় জেলার প্রতেক অঞ্চলে অনেকে কমলার বাণিজ্যিক ভাবে চাষ শুরু করেছেন।

এসব বাগানে উৎপাদিত কমলার আকার, রং, ও স্বাদ পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের দার্জিলিং জলপাইগুড়ি জেলার কমলার মতো। পঞ্চগড় সদর উপজেলার ৭নং হাড়িভাসা, ৬নং সাতমেড়া ইউনিয়নের বেশ কয়েকজন কৃষক বাণিজ্যিক ভিত্তিতে কমলার বাগান করে লাভজনক হয়েছেন। কৃষকদের বাগানে ফলন ভালো হওয়ায় এসব এলাকায় অনেকেই কমলা চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। কমলা বাগান মালিক আবুল কাশেম জানান, ২০১০ সালে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে কমলার চারা নিয়ে চার একর জমিতে কমলার বাগান শুরু করেন তিনি। ২০২০ সালে দুই লাখ টাকার কমলা বিক্রি করেন। তিনি বলেন, ২০১৬ সালে কমলা আরো বেশি বিক্রি করি।

২০২১ সালে আমি প্রায় তিন লাক্ষ টাকার কমলা বিক্রি করবো বলে আশাবাদী। আরেক কমলার বাগান মালিক হাবিব-উন-নবী বলেন, ২০০৯ সালে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে ১৫৬ টি কমলার চারা নিয়ে বাগান শুরু করি। বর্তমানে আমার বাগানে ৯৮০টি কমলার গাছ রয়েছে। প্রতিবছর আমার কমলার বাগান বৃদ্ধি পাচ্ছে। কমলা বাড়ি থেকে পাইকারি নিয়ে যাচ্ছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর আমাদের পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন। সরকার যদি আমাদের সহায়তা করে আমরা আরো লাভবান হবো।

কমলার বাগান মালিক শেফালী বেগম বলেন ছয় বিঘা জমিতে কমলার চাষ করেন। কমলার চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হয়েছে। তিনি বলেন, তার উৎপাদিত কমলা দার্জিলিংয়ের কমলাকে হার মানিয়েছে। কমলার পাইকারি বিক্রেতা শহীদুল হক জানান, তিনি স্থানীয়ভাবে কমলা কিনে পঞ্চগড়ের বিভিন্ন বাজারে এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করেন। ক্রেতা-দর্শনার্থী মিজান জানান, পঞ্চগড়ে উৎপাদিত কমলা তিনি ঢাকায় বিভিন্ন আত্মীয়দের বাসায় পাঠান।

জানাগেছে জেলার মাটি অম্লত্ব ( পিএইচ) ও আবহাওয়া কমলা চাষের উপযোগী। এ লক্ষ্যে কৃষি সম্প্রসারণ মাধ্যমে ২০০৭ সালে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মাধ্যমে কমলা উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নেয়। কমলা আমদানি হ্রাস, আবাদ বৃদ্ধি, পুষ্টি চাহিদা মেটানো ও কৃষকদের বাড়তি আয়ের লক্ষ্যে প্রকল্পটি বাস্তবায়নে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়।

পঞ্চগড় সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ সূত্রে জানাযায়, জেলায় ৭৫ হেক্টর জমিতে কমলা চাষ করা হয়েছে। এ থেকে প্রায় ৩২০ মেট্র্রিকটন কমলা উৎপাদিত হবে ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য