করোনাভাইরাসের টিকা প্রয়োগের ক্ষেত্রে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজে আলাদা কোম্পানির ভ্যাকসিন ব্যবহারের কার্যকারিতা পরীক্ষা শুরু করেছে যুক্তরাজ্য। বর্তমানে চলা টিকা প্রদান কর্মসূচিতে দুই ডোজেই একই ভ্যাকসিন ব্যবহার হচ্ছে। তবে আলাদা ভ্যাকসিন ব্যবহার করা গেলে তা আরও বেশি সহজ লভ্য হয়ে উঠবে। এছাড়া একই ভ্যাকসিন নেওয়ার চেয়ে আলাদা ভ্যাকসিন নিলে আরও বেশি সুরক্ষা পাওয়ার সম্ভাবনাও দেখছেন বিজ্ঞানীরা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

যুক্তরাজ্যের ভ্যাকসিন ও টিকাপ্রদান সংক্রান্ত যৌথ কমিটির সুপারিশ মেনে চলছে। এই কমিটির পরামর্শ হলো যারা ফাইজার-বায়োএনটেক বা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন তারা দ্বিতীয় ডোজেও একই কোম্পানির ভ্যাকসিন গ্রহণ করবেন। যদি কোনও কারণে আলাদা ডোজ ব্যবহার করতেই হয় তাহলে তা হতে হবে যে কোনওভাবেই একই ভ্যাকসিন পাওয়া যাচ্ছে না কিংবা প্রথমে কোন ডোজ নিয়েছেন তা আর জানা সম্ভব হচ্ছে না। বর্তমানে এই পরামর্শ মেনে টিকা প্রদান কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাজ্য।

তবে এবারে আলাদা ডোজ প্রয়োগ নিয়ে পরীক্ষা শুরু করেছে যুক্তরাজ্যের কর্তৃপক্ষ। যারা এই পরীক্ষায় অংশ নেবেন না তারা আগের মতোই একই কোম্পানির টিকা গ্রহণ করবেন।

বিজ্ঞানীরা আশা করছেন যে, মিশ্র টিকার প্রয়োগে চালানো পরীক্ষায় ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে। এর আগে ইবোলার টিকা প্রয়োগের ক্ষেত্রেও মিশ্র ডোজ ব্যবহার করে ভালো ফলাফল পাওয়া গেছে।

যুক্তরাজ্যের নতুন এই পরীক্ষায় ৫০ বছরের চেয়ে বেশি বয়সী প্রায় আটশ’ স্বেচ্ছাসেবক অংশ নেবেন। এদের কেউ কেউ প্রথম ডোজে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা গ্রহণ করবেন আর ১২ সপ্তাহের ব্যবধানে দ্বিতীয় ডোজে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা নেবেন। আর অন্যরা একই রকমভাবে উল্টো পদ্ধতি অনুসরণ করবেন। আর নিয়ন্ত্রকদের অনুমোদন পাওয়া গেলে অন্য ভ্যাকসিনও এই পরীক্ষায় যুক্ত করা হবে।

ওই পরীক্ষায় মুখ্য তদন্তকারীর ভূমিকায় রয়েছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ম্যাথু স্নাপ। এই পরীক্ষাকে প্রবল উত্তেজনাকর আখ্যা দিয়ে বলেছেন এর মাধ্যমে যুক্তরাজ্য ও বিশ্বজুড়ে চলমান টিকাদান কর্মসূচি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যাবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য