অবশেষে ভেঙ্গে ফেলা হল দিনাজপুর ফুলবাড়ীর এলএইচ ইটভাটা

দিনাজপুর

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ উচ্চ আদালতের আদেশে ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার চককবীর গ্রাম বিদ্যালয়ের কোলঘেষে ফসলি জমিতে গড়ে উঠা এলএইচ ব্রিক্স নামে ইটভাটা।

মঙ্গলবার দুপুরে উচ্চ আদালতের আদেশ বলে দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্যা ইবনে মাসুদ আহম্মেদ ও দিনাজপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সামিউল আহম্মেদ কুরসির নেতৃত্বে একটি অভিযানীদল চককবীর গ্রামের এলএইচ ব্রিক্স ইটভাটা ভেঙ্গে দিয়ে আদালতের রায় কার্যকর করেন। এসময় দিনাজপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের জুনিয়র ক্যামিষ্ট রফিকুল ইসলামসহ অনান্য কর্মকর্তাগণ ও আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

দিনাজপুর পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সামিউল আহম্মেদ কুরসি বলেন গত ২০১৭ সালে লোকমান হাকিম নামে এক ব্যাক্তি চককবীর গ্রামের কোল ঘেষে ও একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কোল ঘেষে চককবীর মৌজায় তিন একর ফসলি জমির উপর এলএইচ ব্রিক্স নামে এই ইটভাটাটি নির্মান করেন।

এতেকরে ফসলহানীসহ গ্রামবাসী ও স্কুলগামী শিশুদের স্বাস্থ্যহানী ঘটার আশঙ্কায়, গ্রামবাসীদের পক্ষে চককবীর গ্রামের বাসীন্দা সৈয়দ সুলতান আহম্মেদ ভাটাটি বন্ধ করার জন্য মহামান্য হাইকোটে রীট পিটিশন দায়ের করেন, মহামান্য হাইকোটের বিচারক বিচারপতি তারিকু উল করিম ও চিারপতি ইকবাল কবির শুনারী অন্তে গত ২০২০ সালের ২৭ আগষ্ট এলএইচ ব্রিক্স নামে ইটভাটাটি ভেঙ্গে দেয়ার আদেশ দেন। আদালতের এই আদেশ বাস্তবায়নের জন্য এই অবৈধ্য ইট ভাটাটি ভেঙ্গে দেয়া হল।

এদিকে দির্ঘ আইনী লড়াইয়ের পর ইটভাটাটি ভেঙ্গে দেয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রীট পিটিশন দায়েরকারী সৈয়দ সুলতান আহম্মেদ। তিনি বলেন এই ইট ভাটাটি বাস্তবায়ন করা হলে গ্রামবাসীসহ এই গ্রামের শিশুদের স্বাস্থ্যহানী ঘটতো এবং তিন ফসলি জমির চাষাবাদে ব্যাঘাত ঘটতো। আদালতে ন্যায় বিচার পেয়ে তিনিসহ গ্রামবাসীরা সন্তোষ প্রকাশ করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য