রংপুরে পৌঁছেছে প্রথম ধাপের করোনা ভ্যাকসিন

রংপুর বিভাগ

রংপুর জেলায় প্রথম ধাপে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য ২ লাখ ৪ হাজার ডোজ টিকা এসে পৌঁছেছে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে জেলায় ১৩টি বুথের মাধ্যমে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হবে।

রোববার (৩১ জানুয়ারি) ভোর ছয়টার দিকে ভ্যাকসিনবাহি বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিকেলস্ এর ফ্রিজার ভ্যানটি জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পৌঁছায়। এ সময় সিভিল সার্জনসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা ভ্যান থেকে টিকার ১৭টি কার্টন নামিয়ে ইপিআর স্টোরে সংরক্ষণ করেন।
জেলা সিভিল সার্জন ডা. হিরম্ব কুমার রায় বলেন, ঢাকা ফ্রিজার ভ্যানে পাঠানো থেকে টিকার ১৭টি কার্টন রংপুরে এসে পৌঁছেছে। কোল্ড চেইন মেইনটেইন করে ইপিআই স্টোরের আইএলআর ফ্রিজে সংরক্ষণ করা হয়েছে এসব ভ্যাকসিন। প্রতি কার্টনে এক হাজার ২০০ ভায়াল রয়েছে। প্রতি ভায়ালে ১০টি করে ডোজ রয়েছে।

রংপুরে প্রথম ধাপে ৭ উপজেলায় সাতটি এবং সিটি কর্পোরেশনের ছয়টি বুথের মাধ্যমে আগামী ৭ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে টিকা প্রয়োগ শুরু হবে জানিয়ে সিভিল সার্জন বলেন, জেলায় প্রথম ধাপে ২ লাখ ৪ হাজার এই টিকা পাবে। সিটির ভেতরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং উপজেলাগুলোতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে এসব টিকা দেয়া হবে। পর্যায়ক্রমে আরও ডোজ আসলে নিয়ম মাফিক এসব টিকা দেয়া হবে।

টিকা দেয়ার কাজে নিয়োজিত স্বাস্থ্য কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে বলেও জানান ডা. হিরম্ব কুমার রায়। তিনি আরো বলেন, প্রাপ্ত ২০ হাজার ৪০০ ভায়াল দেয়া যাবে ২ লাখ ৪০ জনকে। ভ্যাকসিন পেতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তালিকাভুক্তদের অনলাইনে বাধ্যতামূলক রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন ছাড়া ভ্যাকসিন গ্রহণ করা যাবে না। স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ, মুক্তিযোদ্ধা ও প্রশাসনের কর্মকর্তা ও ষাটোর্ধ ব্যাক্তিদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এসব ভ্যাকসিন দেয়া হবে।

এ সময় ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. কানিজ সাবিহা, করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণ ও সংরক্ষণ কমিটির সদস্য মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (সিটিএসবি) শরীফ আল রাজীব, জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) সৈয়দ মোহাম্মদ ফরহাদ, ওষুধ প্রশাসনের সহকারী পরিচালক তৌহিদুল ইসলাম, জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট (দায়িত্বপ্রাপ্ত) ও কোল্ড ইন টেকনিশিয়ান আলাউদ্দিন আল আজাদসহ স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বিভাগীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, বিভাগের দিনাজপুর জেলায় আট কার্টন, কুড়িগ্রামে পাঁচ কার্টন, লালমনিরহাটে তিন কার্টন, গাইবান্ধায় ছয় কার্টন, নীলফামারীতে পাঁচ কার্টন, পঞ্চগড়ে দুই কার্টন এবং ঠাকুরগাঁওয়ে চার কার্টন সরবরাহ করা হবে। সে হিসেব অনুযায়ী এই বিভাগে প্রথম ধাপে ৬ লাখ ৪৮ হাজার ডোজ টিকা সরবরাহ করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য