দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী শ্রীশ্রী চিবুকাদেবী মন্দিরের কয়েকটি প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

আজ রোববার ভোররাত ৩ টার দিকে দিনাজপুর চিরিবন্দর উপজেলার আত্রাই নদীর তীরবর্তী শ্রীশ্রী চীবুকাদেবী মন্দিরে এই ভাঙ্গচুরের ঘটনা ঘটে। মন্দিরের কালি প্রতিমার মুখমন্ডলে, শিবের গলায় আঘাত করে ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। একইসাথে মনসা প্রতিমা কয়েকটি অংশে ভেঙ্গে পাশর্^বর্তী নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে।

চীবুকা মন্দির ঘুরে দেখা গেছে ভাঙ্গা প্রতিমার অংশগুলো, এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেছেন স্থানীয় সনাতন ধর্মাবলম্বী ও মন্দির কমিটির লোকজন। এই ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ। বিষয়টির লিখিত অভিযোগ দায়েরের জন্য পরামর্শ দিয়েছেন পুলিশের কর্মকর্তারা।

মন্দির কমিটির সহ-সম্পাদক তপন বিশ্বাস ঘটনার সত্যত্বা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি আমি আজ সকাল ১১ টার দিকে মন্দিরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সেবায়েতের মাধ্যমে জানতে পারি। ঘটনাটির উৎস সম্পর্কে আমাদের তেমন কোন ধারণা নেই। যা হয়েছে সব রাতের আঁধারে। তবে আমাদের ধারণা এটি একটি দুর্বৃত্তদের পরিকল্পিত হামলা। এই মন্দিরের সেবায়েত যিনি আছেন তিনিও সঠিকভাবে বলতে পারছেন না। তিনি সকালে উঠে এসব ভাংচুর হওয়া অবস্থায় দেখেন। তিনি বলেন, এ ঘটনা ঘটার পরে কমিটির কোষাধক্ষ্য তাপস চন্দ্রের সাহায্যে সকল সদস্যেদেকে বিষয়টি অবগত করি। সকলে এসে ঘটনা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে থানায় বিষয়টি জানালে চিরিবন্দর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এই ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের আশ^াস দিয়েছেন।

মন্দির সেবায়েত শিবকর্মা জানান, এ ঘটনা রাতের বেলা হয়েছে। এ ঘটনা আমি দেখতে পাইনি। যা হয়েছে তা রাতের আঁধারে। ভগবান এর বিচার নিশ্চই করবেন। কতদিন আর অন্যায় করে বেঁচে থাকবে তারা। উপরে ভগবান আছেন।

মন্দির কমিটির যুগ্ম-সম্পাদক প্রফুল্ল সরকার জানান, ঘটনাটি ঘটেছে আনুমানিক রাতের শেষার্ধে। সকালে বিষয়টি জানতে পেরে আমি এসে দেখি এখানে তিনটি মন্দিরে অর্থাৎ চিবুকা দেবীর, কালি এবং মনসা মন্দিরে দুর্বৃত্তরা হামলা চালিয়ে প্রতিমার মুখের অংশগুলো ভেঙে দিয়েছে এবং মনসা প্রতিমাটি ভেঙে নদীতে ফেলে দিয়েছে।

তিনি বলেন, চিবুকা মাতার মন্দিরের তালা ভেঙে ঢুকতে না পেরে পরিশেষে তারা কিছু দিয়ে খুঁচিয়ে প্রতিমা ভাঙতে চেয়েছে, মন্দিরে ঢিল মেরেছে। এর আগে ওই মন্দিরের পাশের্^ শ^শ্মানের বাশের তৈরী বেড়াও ভেঙ্গে দিয়েছিল দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হবে বলে জানান তিনি।

দিনাজপুর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারন সম্পাদক উত্তম কুমার রায় বলেন, বিষয়টি আমি জেনেছি। এই ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসাই আমাদের চাওয়া।

দিনাজপুরের পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনা জানার পর দুপুরে ঘটনাস্থলে ২ জন পুলিশ কর্মকর্তা সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোনক্রমেই এসব ঘটনার আসামীদেরকে ছাড় দেয়া হবে না। ইতিমধ্যেই পুলিশ তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, একশ’ বছরেরও অধিক আগে উনিশ শতকের প্রথমের দিকে মাটি কাটার সময়ে এখানে চিবুক মুর্তি পান দিনাজপুরের রাজা গিরিজানাথ রায় বাহাদুর। পরে ১৯৪০ সালে এখানে চিবুকাদেবীর মন্দির স্থাপন করা হয়। তখন থেকেই এখানে জাকজমকভাবেই পূজা-অর্চনা হয়ে আসছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য