দিনাজপুর ফুলবাড়ী পৌরসভার বিদায়ী মেয়রের সংবাদ সম্মেলন

দিনাজপুর

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ী পৌরসভার বিদায়ী মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক শেষ করলেন তার দুই মেয়াদে টানা ১০ বছরের দায়িত্বকাল।

শনিবার সকাল ১১টায় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তার টানা দুই মেয়াদের ১০ বছরের দায়িত্বর শেষ কর্মদিবস পালন করেছেন তিনি। এদিকে তার দায়িত্বকাল টানা ১০ বছরে উন্নায়নের পাশাপাশি ঋনের বোঝা বৃদ্ধি পেয়েছে ২ কোটি ৬১লাখ ৯০ হাজার ৭৭১টাকা।

গত ২০১১ সালে পৌর নির্বাচনে প্রথম নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব গ্রহন কালে পৌরসভার বকেয়র পরিমান ছিল এক কোটি ২২ লাখ ৮৫ হাজার ৬৩৬ টাকা, এরপর তিনি গত ২০১৫ সালে দ্বিতীয় বার নির্বাচিত হয়ে টানা দায়িত্ব পালন করেন। গত ২০২০ সালে ২৮ ডিসেম্বর পৌর নির্বাচনে তাকে পরাজিত করে স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহমুদ আলম লিটন নির্বাচিত হয়ে চলতি সনের গত ২১ জানুয়ারী শপৎ গ্রহন করায়, শনিবার ৩০ জানুয়ারী তিনি (মুরজা সরকার মানিক)তাঁর ম্যায়াদের শেষ কর্মদিবসে সংসাদ সম্মেলন করে টনা ১০ বছরের বিভিন্ন উন্নয়নের বিবারণ দিয়ে কর্মদিবস শেষ করেন।

এদিকে তাঁর শেষ কর্মদিবসে পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতাসহ বিভিন্ন খাতে বকেয়ার পরিমান দাঁড়িয়েছে, তিন কোটি ৮৪ লাখ ৭৬ হাজার ৪০৭ টাকা। অথচ তিনি প্রথম ২০১১ সালে দায়িত¦ গ্রহনের সময় বকেয়ার পরিমান ছিল এক কোটি ২২ লাখ ৮৫ হাজার ৬৩৬ টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের ভিভিন্ন প্রশ্নে উঠে আসে এই বকেয়ার পরিমান। তিনি বলেন বর্তমানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন ভাতা-বৃদ্ধি পাওয়া ও করোনা দুর্যোগের কারনে বকেয়ার পরিমান বৃদ্ধি পেয়েছে।

পৌরসভা সুত্রে জানা গেছে বর্তমানে নিয়মিত পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা ২০২০ সালের জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬ মাসের বাকি ৭৩ লাখ ৬ হাজার ১৪৪ টাকা, পৌর পরিষদের মেয়র-কাউন্সিলরগণের সম্মানী ভাতা নভেম্বর-ডিসেম্বর দুই মাসে বাঁকি তিন লাখ ২০ হাজার টাকা, ভবিষৎ তহবীল ১৪ লাখ ৫৯ হাজার ৪২০ টাকা, আনুতাষিক তহবীল ১১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৮৫ টাকা, অনিয়মিত কর্মচারীদের মজুরী বাঁকি দুই লাক ৪৭ হাজার টাকা, অবসর ভাতা বাঁকি ১৫ লাখ ৭৫ হাজার ১১০ টাকা, বকেয়া আনুতাষিক তহবীল বাঁকি দুই কোটি ২৫ লাখ৩৯ হাজার ৬১৮ টাকা, পূর্বের বকেয়া ২০ লাখ ১২ হাজার ৪৩০ টাকা ও এডিবি তহবীল থেকে ঋন ১৮ লাখ টাকা। মোট বকেয়া ও ঋন তিন কোটি ৮৪ লাখ ৭৬ হাজার ৪০৭ টাকা।

এদিকে ২০২০ সালের জুলাই মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত টানা ৬ মাসের বেতন ভাতা বাঁকি থাকলেও ওই ৬ মাসে ফুলবাড়ী সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে জমি রেজিষ্ট্রির দুই শতাংশ হারে ২৭ লাখ ৬৯ হাজার ৯২৬ টাকাসহ বিভিন্ন খাত থেকে আসা রাজস্ব্য তহবীল কোন খাতে ব্যায় করা হয়েছে তা তিনি উপস্থাপন করেনি।

তবে পৌর সচিব মাহবুবুর রহমান বলেন বিভিন্ন সেবা মুলক খাতে ব্যায় করা হয়েছে রাজস্ব্য আয়ের টাকা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য