Mobilepramরতন সিং, দিনাজপুর॥ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ১ যুবতীকে ৩ মাস আটকে রেখে অনৈতিক কার্যকলাপ করার পর শুক্রবার রাতে তাড়িয়ে দেয়ায় পুলিশ কথিত স্বামী ও তার বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে। দিনাজপুর কোতয়ালী থানার এসআই বিদ্যুৎ সাহা জানান, মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৩ মাস পূর্বে দিনাজপুর উপশহরের ২নং ব্লকের বাবু মিয়ার পুত্র জয়নুদ্দিন জিৎ (২২) লক্ষীপুর জেলার রামগতি উপজেলার চরবাঘাতি গ্রামের আব্দুল খালেকের কন্যা সাইমুন নাহার (১৯)কে দিনাজপুরে নিয়ে আসে। স্বামী-স্ত্রী সেজে উপশহরের ৭নং ব্লকের রানার বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছিল। শুক্রবার রাতে কথিত স্বামী জয়নুদ্দিন ৩/৪ জন খরিদদার এনে সাইমুন নাহারকে দেহ ব্যবসায়ী বাধ্য করলে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এসময় যুবতীর উপর শারীরিক নির্যাতন করা হয়। পরে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় সাইমুন নাহার কোতয়ালী থানায় এসে ঘটনার বিবরণ দিয়ে অভিযোগ করলে পুলিশ কথিত স্বামী জয়নুদ্দিন জিৎ ও বাড়ীর মালিক রানাকে গ্রেফতার করে। নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ধারায় সাইমুন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। শনিবার দুপুরে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে নির্যাতিত সাইমুনের শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন করে। বিকেলে সাইমুনকে দিনাজপুর সদর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ বিচারক ঘটনার বিবরণ শোনার পর তাকে নিরাপদ হেফাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। গ্রেফতারকৃত জিৎ ও রানাকে দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য