বাসায় আয়োজন করেছেন গেট-টুগেদার। অতিথি আপ্যায়নে প্রস্তুতি নিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। কিছু পরিকল্পনায় গুছিয়ে নিতে পারেন আয়োজনটি। ঘর গোছানো, খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা, নিজেদের পোশাক-আশাক, আচার-ব্যবহার সবকিছুতেই চাই সুষ্ঠু পরিকল্পনা। আপনার একটাই চাওয়া এই দিনে সব যেন পারফেক্ট হয়। কীভাবে সামলাবেন তা নিয়েই রয়েছে বিশেষ টিপস।

পোশাক-আশাক
১। আপনার কী পরা উচিত তা নির্ভর করছে কাদের নিমন্ত্রণ করছেন তার ওপর। বন্ধুদের গেট টুগেদার হলে প্যান্ট, টি-শার্ট পরতে পারেন। স্বামীর অফিসের কলিগ হলে পরতে পারেন শাড়ি। এ ছাড়া পরিবারের আত্মীয়রা হলে সালোয়ার কামিজও হতে পারে।
২। আপনার স্বামী সারা বছর ফরমাল পোশাক পরেন। এমন দিনে পাজামা-পাঞ্জাবি তাকে একটা আলাদা লুক দেবে।
৩। পায়ে মানানসই জুতা পরুন। নিজের বাসায় আছেন বলে স্যান্ডেল পরে থাকবেন না। ৪। বেশি গয়নাগাটি পরার প্রয়োজন নেই। গলায় সুন্দর পেন্ডেন্ট, কানে অল্প ঝোলানো দুল আপনার সাজকে পূর্ণতা দেবে।

খাবার
১। খাবার টেবিলে সুন্দর টেবিল ম্যাট পাতুন।
২। প্রথমেই হালকা নাশতা এবং কোমল পানীয়ের আয়োজন রাখুন।
৩। বুফে করলে টেবিলের ওপর সব সাজিয়ে রাখবেন। প্রতিটি প্লেটের সঙ্গে ন্যাপকিন এবং পানির গ্লাস যেন থাকে তা খেয়াল রাখবেন।
৪। টেবিলের মাঝখানে ফুল বা মোমবাতি রাখতে পারেন। এতে সুন্দর একটা আবহাওয়া তৈরি হবে।
৫। বুফে না হলে প্রত্যেক অতিথিকে নিজের হাতে খাবার পরিবেশন করুন। কারো কিছু প্রয়োজন আছে কি না, তা জিজ্ঞেস করুন।

আচার-ব্যবহার
১। হাতে তৈরি কার্ড দিয়ে অতিথিদের নিমন্ত্রণ করতে পারেন। ফোনেও নিমন্ত্রণ জানাতে পারেন।
২। সকল অতিথিকে নিজে অভ্যর্থনা জানান।
৩। যারা একে অপরকে চেনেন না, আপনি নিজে তাদের আলাপ করিয়ে দিন।
৪। সবাইকে সমানভাবে সময় দেওয়ার চেষ্টা করুন।
৫। রিটার্ন গিফটের আয়োজন করতে পারেন।
৬। বিদায়ের মুহূর্তে সবাইকে আসার জন্য ধন্যবাদ জানাবেন। আপনি কতটা খুশি হয়েছেন তা বলতে ভুলবেন না।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য