মধু এমন একটি উপাদান যা স্বাস্থ্যের পাশাপাশি আমাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। মধুতে রয়েছে ভিটামিন এ, বি ও সি। এটি ত্বকের বলিরেখা ও কালচে ভাব দূর করে। এতে শর্করার ঘনত্ব এত বেশি থাকে যে, এর মধ্যে কোনো জীবাণু ১ ঘণ্টার বেশি সময় বাঁচতে পারে না। এছাড়া ব্রণের জীবাণুও ধ্বংস করে মধু।

শীতকালে শুষ্ক ত্বক নিয়ে বেশ ঝামেলায় পড়তে হয় আমাদের। তবে এটি থেকে আপনাকে মুক্তি দিতে পারে মধু। আপনি কখনো শুধু মধু আবার কখনো বা এটির সাথে কিছু মিশিয়ে ত্বকে লাগাতে পারেন। চলুন দেখিনি আমরা কীভাবে মধু ব্যবহার করতে পারি এবং এটি থেকে বিভিন্ন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারি।

শুধু মধুর ফেস প্যাক
এক চামচ মধু নিয়ে তা পুরো মুখে লাগান। আধ ঘণ্টা পরে হালকা গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে মুখের ত্বক উজ্জ্বল হবে।

ডিম ও মধুর ফেস প্যাক
একটি ডিমের কুসুম, এক চামচ দই, এক চামচ মধু এবং আধা চামচ আমন্ড অয়েল একসাথে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার করলে ত্বকের আর্দ্রতা ফিরবে।

মধু ও কলার ফেস প্যাক
একটি পাত্রে আধা চামচ মধু, একটি পাকা কলা ও ২ টেবিল চামচ দুধ নিন। ভাল করে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। হাতে, পায়ে, মুখে লাগাতে পারেন। নিয়মিত এটি ব্যবহার করলে ত্বকের শুষ্কতা দূর হবে।

মধু, গোলাপজল ও হলুদ গুঁড়ার প্যাক
এক চামচ মধু,সামান্য গোলাপজল ও হলুদের গুঁড়া মিশিয়ে মুখে লাগান। ১৫ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বককে উজ্জ্বল করবে।

ব্রণ কমাতে মধু
এক চামচ মধু এবং অলিভ অয়েল মিশিয়ে নিয়ে মুখে লাগান। ২০ মিনিট পরে হালকা গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণ দূর হওয়ার সাথে সাথে উজ্জ্বলতা বাড়বে।

মৃত কোষ অপসারণে
ত্বকের মৃত কোষ অপসারণে বাদাম পাউডার এবং মধু মিশিয়ে মুখে লাগান ।এরপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে মৃত কোষ আর থাকবে না।

শুষ্ক ত্বকের জন্য
শুষ্ক ত্বকের জন্য এক চামচ মধু এবং এক চামচ অলিভ অয়েল নিন। এতে যোগ করুন লেবুর রস। কয়েক মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে নিন। এতে মুখের শুষ্ক ভাব কমবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য