স্পেনের মধ্যাঞ্চলে তুষারঝড়ের পর হিমশীতল তাপমাত্রা বিরাজ করছে, আবহাওজনিত কারণে অন্তত সাত জনের মৃত্যু হয়েছে।

এই পরিস্থিতিতে প্রবীণদের বাড়ি থেকে বের না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তাদের সতর্ক থাকতে বলেছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

রাজধানী মাদ্রিদের পূর্বের পার্বত্যাঞ্চল মোলিনা দে আরাগন ও তেরুয়েলে সোমবার রাতে তাপমাত্রা মাইনাস ২৫ সেলসিয়াসে নেমে যায়। অন্তত ২০ বছরের মধ্যে এটি স্পেনের সবচেয়ে শীতল রাত ছিল বলে জানিয়েছে বিবিসি।

তুষারঝড় ফিলোমেনার রেখে যাওয়া গভীর তুষার তীব্র ঠাণ্ডায় বরফে পরিণত হওয়ায় পরিবহন ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। এমনিতে স্পেনে শীতকালে তেমন ঠাণ্ডা না পড়লেও এবার প্রচুর তুষারপাত হয়েছে ও বরফ জমেছে।

মাদ্রিদের ১৯৭ কিলোমিটার উত্তরপূর্বের মোলিনা দে আরাগনে সবচেয়ে শীতল রাত্রিকালীন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে। এতে স্থানটিকে যে ‘স্পেনীয় সাইবেরিয়া’ বলা হয়, তা স্বার্থকতা পেয়েছে।

স্থানীয় নারি জোলি আসেনসিও বিবিসিকে বলেছেন, “আরও কয়েকদিন এরকম ঠাণ্ডা থাকবে। জীবন কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে। প্রচুর তুষারপাত হয়েছে, বাড়ি ও রাস্তাগুলোতে ঢোকার পথ বন্ধ হয়ে আছে।”

সর্বশেষ বার্সেলোনায় দুই জন গৃহহীন লোকের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে মাদ্রিদে দুই জন, মালাগায় দুই ও সারাগোসায় একজনের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার রাতে মাদ্রিদের তাপমাত্রা মাইনাস ১৬ সেলসিয়াসে নেমে যায়। ইতোমধ্যেই কোভিড-১৯ এর কারণে প্রবল চাপে থাকা রাজধানীর হাসপাতালগুলো বরফে পিছলে গিয়ে হাড় ভেঙ্গে যাওয়া রোগীদের সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে।

সোমবার শুধু মাদ্রিদ অঞ্চলের হাসপাতালগুলোতেই হাড় ভাঙ্গা এক হাজার ২০০ রোগী এসেছে বলে চিকিৎসা কর্মকর্তারা দৈনিক এল মুন্দোকে জানিয়েছেন।

ত্রাণ সংস্থা সেইভ দ্য চিলড্রেন জানিয়েছে, মাদ্রিদ অঞ্চলের লা কানাদা রেয়াল গালিয়ানা এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় প্রায় দুই হাজার শিশু ও তাদের পরিবার শূন্য তাপামাত্রার নিচে বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছেন।

বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে মাদ্রিদ-বার্সেলোনা হাই স্পিড রেল রুটেও ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে গিয়েছিল, পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয় বলে স্পেনীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।

বিরূপ আবহাওয়ার কারণে যাত্রীবাহী বহু ট্রেনের পরিষেবাও ব্যাহত হয়েছে। রোববার মাদ্রিদ-বারাহাস বিমানবন্দরের বহু ফ্লাইট স্থগিত করা হয়েছিল, পরে ধাপে ধাপে ফ্লাইট চলাচল ফের শুরু হয়।

স্পেনের ১২ হাজার ১০০ কিলোমিটার সড়ক থেকে তুষার সরাতে ও সেগুলোকে বরফমুক্ত রাখতে ২৪ ঘণ্টা ধরে এক হাজার ৩০০টি তুষার-পরিষ্কারকরণ গাড়ি কাজ করছে বলে দেশটির দৈনিক এল পায়িস জানিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য