দিনাজপুর সংবাদাতাঃ শুল্কায়ন মুল্য ও আদেশ জটিলতা কাটিয়ে উঠে অবশেষে গত তিন দিন ধরে হিলি স্থলবন্দরে আটকে থাকা চাল খালাস প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গতকাল রাত ১০টা থেকে বন্দরে আটকে থাকা চাল খালাস প্রক্রিয়া শুরু হয়। গত শনিবার থেকে সোমবার পর্যন্ত তিন দিনে ৩১টি ট্রাকে ১ হাজার ২৬২ টন চাল আমদানি হয় যা আটকা ছিল বন্দরের পানামা পোর্ট অভ্যান্তরে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি রফতানি কারক গ্রুপ সভাপতি হারুন উর রশিদ হারুন বলেন, ৩ দিন চাল আটকে থাকায় বন্দরের আমদানি কারকদের অনেক ক্ষতির মুখে পরতে হয়েছে। এসব চাল দেশের বাজারে প্রবেশ করলে চালের বাজার কমে আসবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

হিলি স্থল শুল্কস্টেশনের ডেপুটি কমিশনার সাইদুল আলম জানান, হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত তিন দিন ধরে আমদানিকৃত চালগুলো ছাড়করন করতে পারিনি কিছু আইনি জটিলতা থাকার কারনে। বিষয়টি সমাধান হয়েছে বন্দরে আটকে থাকা চাল খালাস শুরু হয়েছে।

এখন থেকে নন-বাসমতি চাল সর্ব নিম্ন ৩৭০ মার্কিন ডলার মুল্যে শুল্কায়ন করে ছাড় দেওয়া হবে এবং ৪২৫ মার্কিন ডলার মুল্যের অধিক আমদানি মুল্য হলে সেই মুল্যেই সেটি শুল্কায়ন করে ছাড় দেওয়া হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য