জাপানে কয়েকটি অংশে তীব্র তুষার ঝড়ে জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে ও অন্তত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বছরের এ সময়ের গড় হিসাবে হোকুরিকু অঞ্চল ও নিগাতা প্রিফেকচারে যে পরিমাণ তুষারপাত হবে বলে ধারণা করা হয়েছিল তার দ্বিগুণ হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

আবহওয়ার কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এনএইচকের প্রতিবেদন বলা হয়েছে, সোমবার সারাদিন ধরে জাপান সাগরের উপকূলীয় অঞ্চল বরাবর ভারি তুষারপাত অব্যাহত থাকবে।

শক্তিশালী শীতকালীন নিম্নচাপ ও অত্যন্ত শীতল বায়ুর একটি ধারার সম্মিলনে হোকুরিকু অঞ্চল ও নিগাতা প্রিফেকচারে ব্যাপক তুষারপাত হচ্ছে বলে জাপানের আবহাওয়া সংস্থা জানিয়েছে।

সোমবার স্থানীয় সময় ভোর ৫টায় তোয়ামা সিটিতে ১২০ সেন্টিমিটার, ফুকুই সিটিতে ১০০ সেন্টিমিটার ও নিগাতা সিটিতে ৬৩ সেন্টিমিটার তুষারপাত হয়েছে বলে এনএইচকে জানিয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হতে নিষেধ করেছে আবহাওয়া সংস্থা। যারা বাইরে বের হবেন তাদের বরফ আচ্ছাদিত সড়ক ও বিপর্যস্ত পরিবহন ব্যবস্থা সম্পর্কে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

তুষার ধস, ছাদ থেকে পড়া তুষার ও বৈদ্যুতিক তারের ওপর জমা তুষারের বিষয়েও তাদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

তুষারের কারণে রোববার রাত পর্যন্ত দুর্ঘটনায় আট জন মারা গেছেন ও ২৭০ জনেরও বেশি আহত হয়েছেন। ‍নিহতদের অধিকাংশই নিগাতা, তোয়ামা, ইশিকাওয়া, ফুকুই ও গিফু প্রিফেকচারে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন।

তীব্র ঠাণ্ডার কারণে বিদ্যুতের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। উৎপাদক কোম্পানিগুলো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও পরিবারগুলোকে পরিকল্পিতভাবে বিদ্যুৎ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য