স্পেনের কয়েকটি অংশে ঝড় ফিলোমেনার প্রভাবে ভারি তুষারপাত হয়েছে, এতে অন্তত দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

সবচেয়ে বেশি তুষারপাত কবলিত এলাকাগুলোর মধ্যে রাজধানী মাদ্রিদও রয়েছে, নগরীর বিমানবন্দরসহ বহু সড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় মাদ্রিদে ২০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত তুষারপাত হতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

মাদ্রিদ ও আটটি প্রদেশে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

স্পেনের দক্ষিণাঞ্চলে মালাগার কাছে নিজ গাড়িতে আটকা পড়ে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। পূর্বাঞ্চলীয় শহর ক্যালাদাইয়ুদে গৃহহীন এক ব্যক্তি ঠাণ্ডায় জমে মারা গেছেন বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

শুক্রবার রাতে থেকে মাদ্রিদের বারাহাস বিমানবন্দর বন্ধ রাখা হয়েছে। শনিবার সারাদিন বিমানবন্দরটি বন্ধ থাকতে পারে। অন্তত ৫০টি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কাছে একটি মহাসড়কে বহু গাড়ি আটকা পড়ে ছিল। অচল হয়ে পড়ে থাকা গাড়ির চালকদের সহায়তার জন্য দমকল কর্মীদের ডাকা হয়। কয়েকটি এলাকায় রাস্তা পরিষ্কারে সহায়তা করতে সামরিক বাহিনীর সাহায্য চাওয়া হয়।

লোকজনকে অপরিহার্য নয় এমন ভ্রমণ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ টুইটে বলেছেন, “ভ্রমণ এড়িয়ে চলুন আর জরুরি বিভাগগুলোর নির্দেশনা অনুসরণ করুন। ঝড় ফিলোমেনা চলার সময় অত্যন্ত সতর্ক থাকুন।”

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, অন্তত ৪০ বছরের মধ্যে মাদ্রিদে এত ভারি তুষারপাতের ঘটনা আর ঘটেনি।

“আমি গাড়ি নিয়ে হাসপাতালে থাকা স্বামীকে দেখতে গিয়েছিলাম আর তিন ঘণ্টা ধরে এখানে আটকা পড়ে আছি। এই যাত্রায় মাত্র ১৫ মিনিট লাগার কথা ছিল,” নিজের গাড়ি থেকে স্পেনীয় টেলিভিশন আরএনইকে বলেছেন এক নারী।

দেশটির এইএমইটি আবহওয়া সংস্থা বলেছে, “তুষারপাত ব্যতিক্রমী এবং সম্ভবত ঐতিহাসিক।”

বহু লোককে তুষারপাতের দৃশ্য উপভোগ করতে দেখা গেছে। তাদের অনেকে মাদ্রিদের পুয়ের্তা দেল সোল স্কয়ারের মধ্য দিয়ে হেঁটে বেড়িয়েছেন। পূর্ব সতর্কতা হিসেবে কর্তৃপক্ষ নগরীর বড় পার্কগুলো বন্ধ রেখেছে।

এক ব্যক্তিকে রাজধানীর বিখ্যাত সড়ক গ্রান ভিয়া দিয়ে স্কি করতে দেখা গেছে। স্বাভাবিক সময়ে এই সড়কটি পর্যটক ও ক্রেতাদের সমাগমে মুখর থাকে।

পশ্চিম ইউরোপের সবচেয়ে বড় বস্তি এলাকা কানিয়াদা রেয়ালের বাসিন্দাদের আগুন জ্বালিয়ে উষ্ণ থাকার চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

সপ্তাহজুড়ে শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং বৃহস্পতিবার নাগাদ তাপমাত্রা মাইনাস ১২ সেলসিয়াস পর্যন্ত নেমে যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য