ব্রিটিশ পার্লামেন্টে অনুমোদন পেয়ে আইনে পরিণত হওয়ায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তিটি এখন কার্যকর হতে চলেছে।

বৃহস্পতিবার ২৩:০০ জিএমটি থেকেই চুক্তিটি কার্যকর হবে। এর আগে বুধবার যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউস অব কমন্সে ৫২১-৭৩ ভোটে দ্রুতই চুক্তিটি অনুমোদন পেয়েছে।

পরে উচ্চকক্ষ হাউজ অব লর্ডস এ চুক্তি চূড়ান্তভাবে অনুমোদন করেছে এবং রানিও এতে সম্মতি দিয়েছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

কয়েক মাসের বিরোধ ও অচলাবস্থার অবসান ঘটিয়ে বড়দিনের আগের দিন ব্রেক্সিট-পরবর্তী বাণিজ্য চুক্তিতে একমত হয় যুক্তরাজ্য ও ইইউ।

এরপর গত ২৮ ডিসেম্বর এই চুক্তি সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন করেন ইইউ’র ২৭টি সদস্যদেশের রাষ্ট্রদূতরা। পরে ইইউ’র শীর্ষ কর্মকর্তারা চুক্তিটি আনুষ্ঠানিকভাবে সই করার পর ব্রিটিশ পার্লামেন্ট সেটি অনুমোদন করল।

এই অনুমোদনের জন্য এমপিদের ধন্যবাদ জানিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, “এর মধ্য দিয়ে এই দেশের ভবিতব্য এখন সুদৃঢ়ভাবে আমাদের হাতেই রইল।”

তবে বিরোধীরা বলছেন, ইউরোপে থাকার সময় চেয়ে এখনই যুক্তরাজ্যের অবস্থা আরও বেশি খারাপ হবে।

গত ৩১ জানুয়ারি ব্রেক্সিট কার্যকর হলেও এতদিন পর্যন্ত ব্রাসেলসের বাণিজ্যিক নিয়ম মেনে চলেছে যুক্তরাজ্য। সময়সীমা শেষের আগেই উভয় পক্ষ নতুন এই বাণিজ্য চুক্তিতে পৌঁছায়।

এর মধ্য দিয়ে আগামী দিনগুলোর জন্য ইইউ-যুক্তরাজ্য নতুন বাণিজ্য ও নিরাপত্তা সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা পেল।

বিবিসি’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, “এই চুক্তির মধ্য দিয়ে যুক্তরাজ্য যেমন নিজেদের পথে চলতে পারবে তেমনি ইইউ’র সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্যও চালিয়ে যেতে পারবে।”

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য