দিনাজপুর সংবাদাতাঃ আসন্ন দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. তহিদুল হক সরকার দাখিলকৃত মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করেছেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আনুগত্য ও শ্রদ্ধা রেখে তিনি স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে মেয়র পদ থেকে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন বলে জানান তিনি।

মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিনে আজ মঙ্গলবার বিকেলে দিনাজপুর সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শাহিনুর ইসলাম প্রামাণিক এর নিকট দাখিলকৃত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার চেয়ে মেয়র পদে এ্যাড. তহিদুল হক সরকারের স্বাক্ষরিত আবেদন পত্র জমা দেন শহর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনাম উল্ল্যাহ জ্যামী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক নির্বাহী সদস্য এ্যাড মোকসেদুর রহমান সাহাজাদা, সাবেক জেলা যুবলীগ নেতা ফয়সল ইবনে আজিজ চঞ্চল, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক সাদেকুর রহমান বিপ্লব প্রমুখ।

দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জায়েদ ইবনে আবুল ফজল জানান, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষদিনে দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে ছয়জন প্রার্থীর মধ্যে দাখিলকৃত মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী এ্যাড. তহিদুল হক সরকার। এছাড়াও মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির মো. মেহেরুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির আহাম্মদ শফি রুবেল, আওয়ামী লীগের রাশেদ পারভেজ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. হাবিবুর রহমান রানা তাদের প্রার্থীতা বহাল রেখেছেন। তবে আরেক স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী কাজী মো. আশরাফুল ইসলাম এর প্রার্থীতা বাতিল হয়েছে বলে জানান তিনি।

এছাড়াও সাধারণ কাউন্সিলর আসনে ৫ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে নেন। তবে সংরক্ষিত কাউন্সিলর আসনের কোন প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেন নি বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, দ্বিতীয় ধাপে দিনাজপুর জেলায় দিনাজপুর, বীরগঞ্জ ও বিরামপুর পৌরসভা নির্বাচনে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় ছিল ২০ ডিসেম্বর, যাচাই-বাছাই ২২ ডিসেম্বর, প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৯ ডিসেম্বর এবং ভোটগ্রহণ ১৬ জানুয়ারি শনিবার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য