সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম, পঞ্চগড় সংবাদাতাঃ পঞ্চগড় পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী জাকিয়া খাতুনের নৌকা প্রতীকের প্রচারণা শেষে ফেরার পথে ধানের শীষের প্রার্থী তৌহিদুল ইসলামে বাড়ির সামনে বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলায় ছাত্রলীগের ৭ নেতাকর্মী আহত হয়েছে।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু মোঃ নোমান হাসান বাদী হয়ে পঞ্চগড় সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। মামলায় ৩৬ জনের নাম উল্লেখসহ আরও আড়াই থেকে তিনশ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার মোটর সাইকেল যোগে নৌকা প্রতীকের পক্ষে শহরের কলেজ রোড ও মসজিদ পাড়ায় প্রচারণা শেষে ফেরার পথে রাত সাড়ে ১০টার দিকে মসজিদপাড়া বিএনপি প্রার্থী তৌহিদুল ইসলামের বাড়ির গেটের সামনের রাস্তায় আসলে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ধানের শীষের লোকজন ছোড়া, লোহার রড ও লাঠি দিয়ে হামলা চালায়।

বিএনপি ধানের শীষের প্রার্থীর ভাতিজা মন্টু, ছেলে রাজু, মসজিদপাড়ার রাশেদের হুকুমে ধানের শীষের প্রার্থীর বাড়িতে থাকা বিএনপি ও বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের হামলায় মামলার বাদী আবু মোঃ নোমান হাসান, মাহির, সাদিক, মুসলিম, জয়, নয়ন ও শাহিন আহত হন।

তাদের চিৎকারে কেউ এগিয়ে না আসলে মোটর সাইকেল ফেলে সেখান থেকে ইরান চৌধুরীর বাড়ির সামনে এসে পঞ্চগড় থানার এসআই দীন মোহাম্মদকে ঘটনা খুলে বললে তিনি ঘটনাস্থল থেকে তিনটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসেন। পরে তাদের পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিনে ওই রাতের ঘটনায় গতকাল শনিবার সকালে ধানের শীষের প্রার্থী তৌহিদুল ইসলামে পক্ষে জেলা প্রশাসকের কাছে একটি স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, শুক্রবার রাত ১২টা ১০ মিনিটে নৌকা সমর্থিক কর্মীরা মসজিদপাড়াস্থ ধানের শীষের প্রার্থী তৌহিদুল ইসলামের বাড়ি ও নির্বাচন অফিসে হামলা চালায়।

এসময় বাসা ও নির্বাচন অফিস এবং এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। স্মারকলিপিতে নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ রক্ষাসহ ভোটার ও প্রার্থীদের নিরাপত্তা বিধানে জেলা প্রশাসনের সক্রিয় ভূমিকা পালনের আহবান জানানো হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য