ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ঘনকুয়াশা ও তীব্রশীতে অচল হয়ে পড়েছে সাভাবিক জিবন-যাপন। ঘনকুয়াশার কারনে যানবহন গুলো হেড লাইট জ্বালিয়ে চলাচল করছে, তীব্রশীতের কারনে দিনের অধিকাংশ সময় ঘরবন্ধি হয়ে পড়েছে সাধারন মানুষ, ফলে শহরের রাস্তা-ঘাট ফাঁকা হয়ে পড়েছে।

শহরের রাস্তা-ঘাট ফাঁকা হয়ে পড়ায় বিপাকে পড়েছে নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষ। তাদের রোজগারে ভাটা পড়েছে, কমে গেছে রিক্সা-ভ্যানে যাত্রীদের যাতায়াত, কমে গেছে ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ীদের বেচা-কেনা, ফলে পরিবার পরিজন নিয়ে এখন বিপাকে পড়েছে তারা।

এদিকে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে গরম কাপড়ের দামও, শহরের পুরাতুন কাপড়ের দোকান থেকে নিম্ন আয়ের মানুষ শীতের গরম পোষাক সংগ্রহ করলেও সেখানেও এখন দাম অনেক বেশি। পুরাতুন কাপড় ব্যাবসায়ীরা বলছেন করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারনে অনান্য বছরের ন্যায় এই বছর পুরাতুন কাপড় আমদানী হয়নি, তাই গরম পোষাকের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে।

পৌর শহরের রিক্সা চালক ছবেদ আলী জানান শীতের কারনে মানুষ তেমন বাহিরে বের হচ্ছেনা, এই কারনে তার রিক্সার আয়ও কমে গেছে, সারা দিনে যে আয় হয় তা দিয়ে তার পরিবারের চাহিদা পুরণ করায় কঠিন হয়ে পড়েছে গরম পেষাক কিনবে কিভাবে। চা-বিক্রেতা আলম সরকার বলেন দিনের অর্ধেক সময় দোকানে বেচা-কেনা হয়না তাই আয় অনেক কমে গেছে।

এদিকে শীতের তীব্রতায় আক্রান্ত হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মশিউর রহমান বলেন শীতে নিমুনিয়া হাপানির পাশাপাশি সর্দ্দি কাশি রোগ দেখা দিয়েছে, যা করোনা ভাইরাসের উপসর্গ এই কারনে তিনি কঠোর ভাবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য