লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে মেয়ের দেনমোহরের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে পিতার বিরুদ্ধে। অতপর টাকা উদ্ধারে মেয়ে রোকসানা বেগম তার পিতার রহমত আলীর বিরুদ্ধে স্থানীয় থানায় অভিযোগ করতে গেলে তা গ্রহন করেনি পুলিশ এমন অভিযোগ রোকসানা বেগমের। তবে পুলিশ বলছে, রোকসানা বেগম তার পিতার বিরুদ্ধে একই অভিযোগ এর আগেও করেছেন। তখন ওই অভিযোগ গ্রহন করে তদন্ত করা হয়েছে। তারা একই অভিযোগ বারবার দায়েরের চেষ্টা করছেন।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ওই উপজেলার খালিশা মদাতী এলাকার রহমত আলীর মেয়ে রোকসানা বেগমের সাথে ২০১১ সালে একই উপজেলার শ্রীখাতা বালাপাড়া এলাকার ইছোব আলীর বিয়ে হয়। ২০১৩ সালের ১১ আগস্ট তাদের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। ওই সময় ইছোব আলী বিয়ের দেনমোহর বাবদ ১ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে রোকসানার পিতা রহমত আলীর নিকট প্রদান করেন।

বিবাহ বিচ্ছেদের ২ মাস পর ইছোব-রোকসানা আবারও বিয়ে করে নতুন ভাবে সংসার জীবন শুরু করেন। সম্প্রতি রোকসানা বেগম তার দেন মোহরের টাকা তার পিতা রহমত আলীর কাছে ফেরত চাইলে এ নিয়ে পিতা-মেয়ের দ্বন্দ্ব শুরু হয়।

ওই টাকা উদ্ধারে মা মনজিলা বেগমকে সাথে নিয়ে কালীগঞ্জ থানায় পিতার বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে যান রোকসানা বেগম। কিন্তু রোকসানা বেগমের অভিযোগ, কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন তাদের অভিযোগ গ্রহন করেন নাই।

রোকসানা বেগমের মা মনজিনা বেগম জানান, আজ-কাল করে তার মেয়ের দেনমোহরের টাকা তার পিতা রহমত আলী তালবাহানা করছেন। তাই ওই টাকা উদ্ধারে তিনি অভিযোগ নিয়ে থানায় গিয়ে ছিলেন। পুলিশ তাদের অভিযোগ গ্রহন করেন নাই।

কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, রোকসান বেগম তার পিতার বিরুদ্ধে একই অভিযোগ বারবার করছেন। এর আগেও দেন মোহরের টাকা উদ্ধারের জন্য পিতার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন মেয়ে রোকসানা বেগম। তখন তদন্ত করে তার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি। কয়েক দিন আগে রোকসানার মা মনজিলা বেগম একই অভিযোগ নিয়ে এসেছেন। একই অভিযোগ বারবার দায়েরের চেষ্টা করছেন তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য