দিনাজপুর সদরঃ কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য অবমাননা করার প্রতিবাদে জেলার সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ আয়োজিত ‘জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্লান’ এই শিরোনামে এক প্রতিবাদ সভা হয়েছে। শনিবার সকাল ১১টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি অডিটোরিয়ামে জেলার সকল সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এই প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়। দিনাজপুর প্রশাসক মোঃ মাহমুদুল আলম এর সভাপতিত্বে জেলার বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের প্রধান কর্মকর্তারা তাদের সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। এসময় বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ আবদুল আজিজ আহমদ ভূঁইয়া, দিনাজপুর পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন বিপিএম পিপিএম বার, রংপুর বিভাগ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডাঃ আবদুল আহাদ, দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ পরিচালক ডাঃ নির্মল চন্দ্র পাল, দিনাজপুর সেটেলমেন্ট কর্মকর্তা শামসুল আযম, দিনাজপুর জেলা পরিষদের চিপ রশিদুল মান্নাফ কবির, দিনাজপুর চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আয়েজ উদ্দিন, গণপূর্ত নির্বাহী কর্মকর্তা কুতুব আল হুসাইন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তৌহিদুল ইকবাল, দিনাজপুর সিটি কলেজ অধ্যক্ষ মোজাম্মেল হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শুধু একজন ব্যক্তি নন তিনি ছিলেন আমাদের চেতনার নাম। অকৃত্রিম দেশপ্রেম আর বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণেই বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জন করতে পেরেছেন বঙ্গবন্ধু। তিনি বাংলাদেশকে স্বাধীনতার নেতৃত্বদানকারী একজন মহাপুরুষ। তিনি দেশের স্বাধীনতা অর্জন করতে গিয়ে জীবনের বেশি সময় কারাভোগ করেছেন। তার এই ত্যাগের প্রতিদান আমরা কখনও দিতে পারবোনা। পাকিস্থানের কারাগারে যখন তাকে ফাঁসির মঞ্চ তৈরী করে বলা হল তোমাকে ফাঁসি দেওয়া হবে। ফাঁিসর মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি বলেছেন আমরা লাশটা তোমরা বাংলার মানুষের কাছে পাঠিয়ে দিও। ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারী তিনি দেশে ফিরে এসে তিনি নিজের পরিচয় এইভাবে দেন আমি এজন বাঙ্গালী এবং আমি একজন মুসলমান। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কার্য অবমাননা কারীদের হুশিয়ারী করে বক্তরা আরোও বলেন, এই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কার্য অবমাননা করে সমগ্র দেশের মানুষের অনুভতির জায়গায় আঘাত করা হয়েছে। এই দৃস্কৃতিকারিদেরকে অবশ্যই আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তি প্রদান করা হবে।

পার্বতীপুর দিনাজপুরঃ “জাতির পিতার সম্মান, রাখবো মোরা অম্লান” এই শ্লোগান কে সামনে রেখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে আলোচনা সভা করেছে পার্বতীপুর উপজেলা পর্যায়ের সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাশিদ কায়সার রিয়াদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন- উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) এইচএম খোদাদাদ হোসেন, উপজেলা ভাইসচেয়ারম্যান আমিরুল মোমিনীন, পার্বতীপুর আদর্শ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবদুর রাজ্জাক সরদার, পার্বতীপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এ- কলেজের অধ্যক্ষ আহছান হাবিব, পার্বতীপুর পল্লীবিদ্যুৎ জোনাল অফিসের ডিজিএম মোঃ এহতেশামুল হক, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রাকিবুজ্জামান, ভবানীপুর ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মবিদুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোক্তারুল আলম, সাংবাদিক মনজুরুল আলম, পার্বতীপুর মডেল থানার উপপরিদর্শক মিজানুর রহমান, ৬নং মোমিনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল ওহাব মন্ডল ও রামপুর ইউনিয়নের ভূমি সহকারি কর্মকর্তা তাপস চক্রবর্তী প্রমুখ। পার্বতীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাশিদ কায়সার রিয়াদ বলেন, স্বপ্নের পদ্মাসেতু যখন দৃশ্যমান। দেশ যখন উন্নয়নের মহাসড়কে, ঠিক সেই মুহূর্তে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে দুর্বৃরা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতির পিতার ভাস্কর্য নির্মাণের বিরোধিতাকারীদের প্রতিহত করার ঘোষণা দেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও পার্বতীপুর আদর্শ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আবদুর রাজ্জাক সরদার বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। যারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙার ধৃষ্টতা দেখিয়েছে তাদেরকে প্রতিরোধ করা হবে। জাতির পিতার সম্মান রক্ষায় সবাইকে এক সাথে কাজ করতে হবে। শনিবার দুপুরে ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস ২০২০ উপলক্ষ্যে যদিও মানছি দূরত্ব, তবুও আছি সংযুক্ত শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

চিরিরবন্দর দিনাজপুরঃ সাম্প্রতিক সময়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নিয়ে অপপ্রচার, অসম্মান ও ভাঙায় ‘জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্লান’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে চিরিরবন্দরে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১২ ডিসেম্বর শনিবার সকালে প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আয়েশা সিদ্দীকার সভাপতিত্বে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইরতিজা হাসান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মাহমুদুল হাসান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. আজমল হক, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোছা. রুনা পারভীন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা পুরবী রানী রায়, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুব্রত কুৃমার সরকার, উপজেলা আইসিটি কর্মকর্তা মিজানুর রহমান প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। উপজেলার সকল পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা ও কর্র্মচারীর অংশগ্রহণে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

খানসামা দিনাজপুরঃ “জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্মান” স্লোগানে দিনাজপুরের খানসামা উপজেলায় জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মান অক্ষুন্ন রাখার প্রত্যয়ে বঙ্গবন্ধু’র ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদে সভা ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলা পর্যায়ে কর্মরত সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ হলরুমে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। ইউএনও আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলামের সভাপতিত্বে ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আজমুল হকের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ওসি শেখ কামাল হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন, উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা আবু রাহাত সোহেল রানা,প্রমূখ।

ফুলবাড়ী দিনাজপুরঃ জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদে ফুলবাড়ী সরকারী কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রতিবাদ সভা ও মানব বন্ধন। শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় ফুলবাড়ী উপজেলা চত্তরে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ভাস্কর্য ভাংচুর এর প্রতিবাদে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রিয়াজ উদ্দীন এর সভাপতিত্বে ঘন্টা ব্যাপি মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ভাস্কর্য ভাংচুরের প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রিয়াজ উদ্দীন, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি কার্নিজ আফরোজ, ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ ফখরুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু সরকারী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ মাসুদুর রহমান, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রুম্মান আক্তার, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাসিনা ভূইয়া প্রমুখ। বক্তাগণ সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বাংলাদেশের রূপকার জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ভাস্কর্য ভাংচুরকারীদের শাস্তির দাবী জানান। মানব বন্ধনে উপজেলার সকল স্তরের সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ঘোড়াঘাট, দিনাজপুরঃ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ভাষ্কর্য ভাংচুর করার প্রতিবাদে শনিবার উপজেলা প্রশাসন এক প্রতিবাদ সভা ও মানব বন্ধন পালন করে। শনিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের সামনে শেখ মুজিবুর রহমানের মুরালের সামনে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাফিউল আলমের ও ঘোড়াঘাট থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ আজিম উদ্দিন। বিক্ষোভ সমাবেশে বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগন ,শিক্ষক ,সাংবাদিকগন সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন।

নবাবগঞ্জ, দিনাজপুরঃ ‘জাতির পিতার সম্মান রাখবো মোরা অম্লান’ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের অংশগ্রহনে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ নাজমুন নাহারের সভাপতিত্বে শনিবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ অশোক কুমার চৌহান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ শাহাজাহান আলী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ রেফাউল আজম, অধ্যক্ষ মোঃ শহীদুর রহমান, প্রধান দিলীপ কুমার সাহা, নবাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোঃ হাসিম উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার সাথে জড়িতদের ও ইন্ধন দাতাদের দৃষ্টান্ত মুলক শাস্তির দাবী জানান।

হাকিমপুর সংবাদাতাঃ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরের প্রতিবাদে দিনাজপুরের হিলিতে ‘জাতির পিতার সম্মান, রাখবো মোরা অম্লান’—এই প্রতিপাদ্যে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। হাকিমপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে শনিবার (১২ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এই প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নূর-এ আলমের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান হারুন উর রশীদ, ভাইস চেয়ারম্যান শাহিনুর রেজা, পৌরসভার মেয়র জামিল হোসেন, কৃষি অফিসার ড. মমতাজ সুলতানা, ভেটেরিনারি সার্জন ডা. রতন কুমার, ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ, শিক্ষা অফিসার মাসুদুল হাসানসহ অনেকে। সভায় বক্তারা ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যে আঘাত হানা দেশের স্বাধীনতা ও পতাকার ওপর আঘাত হানা’ বলে মন্তব্য করেন। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের কর্মকাণ্ড ঘটানোর সাহস না দেখাতে পারে তার ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তারা। সেইসঙ্গে সব ষড়যন্ত্রের মাঝেও উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাওয়ার শপথ নেন তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য