দিনাজপুর সংবাদাতাঃ স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্নাতক শেষ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেছেন দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

রবিবার(২৯ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ করে পরীক্ষার দাবিতে আন্দোলনরত বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

সড়ক অবরোধের কারণে সড়কের দুই পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। শত শত বাস ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন আটকা পড়ে।

এদিকে পরীক্ষা গ্রহণ করা না করার বিষয়ে হাবিপ্রবির রেজিস্ট্রার ডাঃ মোঃ ফজলুল হক সকলের অবগতির জন্য একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রদান করেছেন।

জানা যায়, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্নাতক শেষ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে আসছে। মানববন্ধনের পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার দাবীতে গত ৪ নভেম্বর বুধবার প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে উপাচার্যের বাসভবনে সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। এরপর গত ৮ নভেম্বর রবিবার আবারো প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান নেয় শিক্ষার্থীরা।

সে সময় সকল কর্মকর্তা কর্মচারি ভিতরে আটকা পরে। পরে সন্ধ্যা ৬ টার দিকে দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মাগফারুল হাসান আব্বাসী গিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থী এবং উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করে শিক্ষার্থীদেরকে জানানো হয় ১৪ নভেম্বর জানানো হবে পরীক্ষা কবে কি ভাবে নেয়া হবে। কিন্তু পরে শিক্ষার্থীদেরকে কিছু জানানো হয়নি। তাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা সেশনজোট এড়াতে চুড়ান্ত পরীক্ষা গ্রহণের দাবীতে আবারো আন্দোলন শুরু করে।

রবিবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ শুরু করে। ফলে মহাসড়কের দুই পাশে শতশত পরিবহন আটকা পড়ে।

১৬ ব্যাচের শিক্ষার্থী সৈয়দ রাকিব হাসান, মোঃ মারুফ হাসান,মোঃ নুর আলম,মুশফিকুর রহমান,ইয়াসিন, লিটন, জাহিদ জানান, আমরা ক্যাম্পাসের ভিতরে আন্দোলন করতে করতে আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। তাই বাধ্য হয়ে আমরা ক্যাম্পাসের ভিতর থেকে মহাসড়কে উঠে এসেছি। দুপুর সাড়ে ১২ টা থেকে দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছি। কিন্তু উপাচার্য সব জেনেও কোন সিদ্ধান্ত দিচ্ছেনা। আমরাও সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত অবরোধ চালিয়ে যাব।

পরীক্ষা গ্রহণ করা না করার বিষয়ে হাবিপ্রবির রেজিস্ট্রার ডাঃ মোঃ ফজলুল হক সকলের অবগতির জন্য একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রদান করেছেন।

যাতে বলা হয়েছে আগামী ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস ও পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে। ইউসিজি ও শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অনুমতি পাওয়া সাপেক্ষে কাল বিলম্ব না করে স্ব-শরীরে বা অনলাইনে গ্রহণ করা হবে। আগামী ১ ডিসেম্বর ইউজিসির চেয়ারম্যান বরাবর রেজিস্ট্রার একটি চিঠি পাঠাবেন। যাতে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার গুরুত্ব তুলে ধরা হবে।

দিনাজপুর কোতয়ালী থানার ওসি মোঃ মোজাফফর হোসেন বলেন, সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মাগফারুল হাসান আব্বাসী,এ্যাসিলেন্ড এবং আমি ঘটনা স্থলে আবস্থান করছি। ছাত্ররা এখনো মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছেন।

ঘটনা স্থলে উপস্থিত উপজেলার নির্বাহী অফিসার মাগফারুল হাসান আব্বাসী মোবাইলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাসেমের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করছেন।

এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মোঃ খালেদ হোসাাইনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলেও সংযোগ পাওয়া যায় নি।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে। তারা মহাসড়ক থেকে উপার্চায়ের বাসভবনের দিকে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা যায়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য